যৌথ প্রযোজনার ছবি ‘শিকারি’ বাংলাদেশে অভিষেক শ্রাবন্তীর

যৌথ প্রযোজনার ছবি ‘শিকারি’ বাংলাদেশে অভিষেক শ্রাবন্তীর

যৌথ প্রযোজনার ছবি ‘শিকারি’ দিয়ে বাংলাদেশে অভিষেক শ্রাবন্তীর। সুপারহিট এই ছবির পর দর্শকরা অপেক্ষায় ছিলেন ফের দেশি পর্দায় কবে দেখা যাবে প্রিয় নায়িকাকে। প্রথম সুখবরটি দিয়েছিল শাপলা মিডিয়া, শাকিব খানের সঙ্গে শ্রাবন্তীকে নিয়ে ‘বয়ফ্রেন্ড’-এর ঘোষণা দিয়ে। তবে ‘বয়ফ্রেন্ড’-এর আগেই শুরু হয়ে গেল মুহম্মদ মোস্তফা কামাল রাজের ‘যদি একদিন’-এর শুটিং। এ ছাড়া আরো কয়েকটি বাংলাদেশি ছবিতে অভিনয়ের কথা চলছে। এ বছরই তিন-চারটি বাংলাদেশি ছবিতে দেখা যেতে পারে এই টালিউড কুইনকে।

সন্ধ্যাবেলা। শ্রাবন্তীর ব্যক্তিগত নম্বরে ফোন করলে দুইবার রিং হতেই ফোনটি রিসিভ করলেন তাঁর সহকারী। পরিচয় জানাতে ফোনটি দিলেন শ্রাবন্তীর কাছে। তারপর কুশলবিনিময়। জানালেন, একটি অনুষ্ঠানে এসেছেন। খুব বেশি কথা বলা সম্ভব হবে না। বাংলাদেশি ছবিতে প্রথমবার অভিনয় করার প্রসঙ্গ তুলতেই বললেন, ‘আরো চার বছর আগে বাংলাদেশে আমার অভিষেক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু স্ক্রিপ্ট আর পারিশ্রমিক মনমতো না হওয়ায় তখন করিনি। তবে এবার সব মনমতো পেয়েছি।’

‘যদি একদিন’-এ যুক্ত হওয়ার কথাও বললেন, ‘হুট করেই ছবিটার সঙ্গে যুক্ত হলাম। ভেবেছিলাম গতানুগতিক বাংলা ছবির মতো হালকা গল্পই হবে, কিন্তু স্ক্রিপ্ট পড়ে দেখি সে রকম না। তা ছাড়া জেনেছি পরিচালক আগে শাকিব খানকে নিয়েও ছবি বানিয়েছেন। তাই আর কিছু ভাবিনি; কাজ করতে রাজি হয়ে গেলাম।’

তাহসান, তাসকিনকে নিয়ে ‘যদি একদিন’-এর শুটিং শুরু হয়ে গেছে। দু-এক দিনের মধ্যেই বাংলাদেশে আসার কথা শ্রাবন্তীর।

‘শিকারি’ ছবির প্রচারণায় বাংলাদেশে এসে শ্রাবন্তী জানিয়েছিলেন, বছরে খুব বেশি হলে তিন-চারটি ছবিতে অভিনয় করবেন। এর মধ্যে বাংলাদেশের ‘যদি একদিন’ আর ‘বয়ফ্রেন্ড’ চূড়ান্ত। এখানকার আরো কয়েকজন পরিচালকের সঙ্গে কথা হচ্ছে। তাঁদের সঙ্গে যদি কোনো ছবি চূড়ান্ত হয়ে যায় তাহলে তো ২০১৮ সালের শিডিউল লক। তার মানে কি টালিগঞ্জে এ বছর দেখা যাবে না শ্রাবন্তীকে? “অবশ্যই যাবে। কিছুদিনের মধ্যে সৃজিত মুখার্জির ‘উমা’ মুক্তি পাচ্ছে। নতুন আরো কয়েকটি চূড়ান্ত। দুই দেশের ভক্তদের জন্যই কাজ করতে চাই। প্রয়োজন পড়লে বছরজুড়ে শিডিউল ভাগ করে নেব। দুইটা বাংলাদেশে, দুইটা কলকাতার ছবি হবে। তাই বলে একেবারে বাংলাদেশের ছবি অথবা একেবারে কলকাতার ছবি নিয়ে পড়ে থাকব না”—বললেন শ্রাবন্তী।

সম্প্রতি কলকাতার সবচেয়ে বড় প্রযোজনা সংস্থা শ্রী ভেঙ্কটেশ বাংলাদেশ থেকে ছবি নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছে। এটাকে শুভ দিক বলেই মনে করছেন তিনি। ভেঙ্কটেশের এই উদ্যোগ দুই দেশের চলচ্চিত্রকে গতিশীল করবে বলে তাঁর বিশ্বাস।

সমসাময়িক বাংলাদেশি কোনো নায়িকার সঙ্গে এখনো তাঁর সম্পর্ক গড়ে ওঠেনি। তবে বেশ কয়েকজনের নাম জানেন—অপু বিশ্বাস, পরীমণি, বিদ্যা সিনহা মিম ও মাহিয়া মাহি। এঁদের মধ্যে কাউকে প্রতিদ্বন্দ্বী ভাবছেন? ‘আমি কেন তাঁদের প্রতিদ্বন্দ্বী ভাবব! বাংলাদেশের ক্ষেত্রে তাঁরা প্রত্যেকে আমার সিনিয়র। যৌথ প্রযোজনার কল্যাণে পরী, মিম ও মাহির ছবি দেখা হয়েছে। আর শাকিবের সঙ্গে অপুর জুটি সবচেয়ে হিট। সবাইকে সঙ্গে নিয়েই পথ চলতে চাই।’

‘যদি একদিন’-এ শ্রাবন্তীর সঙ্গে অভিনয় করছেন তাহসান। চুক্তিবদ্ধ হওয়ার আগে তাহসানকে সেভাবে চিনতেন না। তবে ইউটিউবের কল্যাণে এখন রীতিমতো তাহসানের গানের ভক্ত বনে গেছেন। চেনেন ছবির আরেক অভিনেতা তাসকিনকেও। বলেন, “গত বছরের বিগ হিট ‘ঢাকা অ্যাটাক’। তাসকিনের ব্যাপারে তখনই জেনেছিলাম।”

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com