যে কারণে উপজেলা চেয়ারম্যান উবার চালক

যে কারণে উপজেলা চেয়ারম্যান উবার চালক

যে কারণে উপজেলা চেয়ারম্যান উবার চালক
যে কারণে উপজেলা চেয়ারম্যান উবার চালক

কক্সবাজার জেলার পেকুয়া’র প্রাক্তন উপজেলা চেয়ারম্যান শাফায়েত আজিজ রাজু এখন উবার চালক।

বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সর্বোচ্চ ডিগ্রিধারী রাজু দুই মেয়াদে ১০ বছর পেকুয়া’র উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন।

দুই দফা নির্বাচন করতে গিয়ে তার বেশ কিছু পৈত্রিক সম্পত্তি বিক্রি করতে হয়েছে। পড়ালেখা শেষ করার পর পরই উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ায় কোনো চাকরিও করা হয়নি। দলীয় সিদ্ধান্তে তৃতীয়বার নির্বাচনে আর অংশ নেননি তিনি। গত ৪/৫ মাস ধরে তিনি চট্টগ্রাম নগরীর বাসায় বেকার জীবন যাপন করছিলেন।

মঙ্গলবার রাতে মোবাইল ফোনে তার সাথে যোগাযোগ করা হয়। ফোনে শাফায়েত আজিজ রাজু জানান, চট্টগ্রাম শহরে চান্দগাঁও আবাসিক এলাকায় তিনি যে বাসায় ভাড়া থাকেন তার ভাড়া মাসিক ১৮ হাজার টাকা। এ ছাড়া তার স্কুলগামী দু’টি সন্তান রয়েছে। সব মিলিয়ে প্রতিমাসে লাখ টাকার উপরে সংসারের ব্যয় বহন করতে হয় তাকে। গ্রামের বাড়ির সম্পত্তি থেকে যে আয় আসে তাতে তার সংসার চালানো কষ্টসাধ্য। এ ছাড়া চাকরি খুঁজতে বন্ধু-বান্ধবদের দ্বারস্থ হলেও কেউ  তার কথা বিশ্বাসই করতে চায় না। দুইবারের উপজেলা চেয়ারম্যান কারো কাছে চাকরি খুঁজছেন এটাকে সবাই হেসেই উড়িয়ে দেন। অপরদিকে কয়েকমাস ধরে বাসায় বেকার বসে থাকাটা আর সম্ভব হচ্ছিল না। তাই নিজের ব্যবহারের বাইক নিয়ে উবার চালক হিসেবেই কাজ শুরু করেন।

রাজু জানান, উত্তরাধিকার সূত্রেই তিনি জমিদার পরিবারের সন্তান। তার দাদার শত শত একর জমি রয়েছে কক্সবাজার জেলা পেকুয়া, চকরিয়া অঞ্চলে। তবে ক্রমে বাবা-দাদারা অনেক জমি বিক্রিও করে দিয়েছেন। উত্তরাধিকার সূত্রে তিনিও বেশ কিছু জমির মালিক হয়েছেন।

গত রোববার ব্যাক্তিগত ফেসবুক ওয়ালে নিজের উবার চালনা নিয়ে পোস্ট দিয়ে তিনি সারাদেশে এখন রীতিমত ভাইরাল। মূলতঃ কোন কাজকেই ছোট করে না দেখতে এবং বেকার তরুনদের অনুপ্রাণিত করতেই তিনি এই পোস্ট দিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন রাজু। তবে তার এই স্ট্যাটাসকে অভাবের কারণে উপজেলা চেয়ারম্যান উবার চালাচ্ছেন বলে সংবাদ শিরোনাম হয়েছেন, ভাইরাল হয়েছেন- যা তিনি কখনোই প্রত্যাশা করেননি বলে জানান।

রাজু বলেন, ‘শুধুমাত্র উবার চালিয়েই সংসার চালাচ্ছি- বলে যে বিষয়টি ভাইরাল হয়েছে তা আসলে সেভাবে সত্যি নয়। উবার চালনার আয় হয়তো আমার সংসারে সহায়তা করছে। কিন্তু বিষয়টি ভিন্নভাবে ভাইরাল হয়েছে।’

রাজু বলেন, ‘আমি এই সময়ের তারুণ্যকে বুঝাতে চেয়েছি কোন কাজই ছোট নয়। সৎ থেকেও পরিশ্রমের মাধ্যমে জীবন যাপনের মধ্যে আলাদা একটা সুখ আছে।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com