মানবতাবিরোধী অপরাধ: প্রথমবারের মতো দণ্ডপ্রাপ্ত আসামির জামিন

মানবতাবিরোধী অপরাধ: প্রথমবারের মতো দণ্ডপ্রাপ্ত আসামির জামিন

নিজস্ব প্রতিবেদক : একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় ২০ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামি নোয়াখালীর সুধারামের অসুস্থ আব্দুল কুদ্দুসকে ছয় মাসের জামিন দিয়েছেন আপিল বিভাগ। এ আদেশের মধ্য দিয়ে সাজাপ্রাপ্ত কোনো যুদ্ধাপরাধীকে প্রথম জামিন দেয়া হলো।

বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ ক্যান্সার রোগাক্রান্ত আসামি কুদ্দুসের চিকিৎসা প্রতিবেদন বিবেচনায় নিয়ে ও জামিন আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ আদেশ দেন।

একই সাথে জামিনের মেয়াদ ছয় মাস পূর্ণ হলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) একটি বোর্ড বসিয়ে তার স্বাস্থ্যগত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন আদালত।

এর আগে গত ২৯ জুলাই আপিল বিভাগ আসামি আব্দুল কুদ্দুসকে কারাগার থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে স্থানান্তরের নির্দেশ দেন।

আদালতে আসামি কুদ্দুসের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন, তাজুল ইসলাম ও মাসুদ রানা। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

জামিন আদেশের পর খন্দকার মাহবুব হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, পিজি হাসপাতালের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৮৭ বছরের আব্দুল কুদ্দুস ফুসফুস ক্যান্সারে আক্রান্ত। আমরা বলেছি, এই রোগে আক্রান্ত রোগী বেশিদিন বাঁচতে পারে না। সে যেন পরিবারের সাথে থেকে সেবা পায়, সেজন্য তার জামিন প্রয়োজন। আদালত মেডিকেল প্রতিবেদন এবং আইনজীবীর যুক্তি আমলে নিয়ে জামিন দিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, সর্বোচ্চ আদালত থেকে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় দণ্ড নিয়ে এটাই প্রথম জামিনের আদেশ। এর আগে আর কোনো অপরাধী সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ থেকে জামিন পাননি।

গত ১৩ মার্চ মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় তিনজনকে মৃত্যুদণ্ড এবং আব্দুল কুদ্দুসকে ২০ বছরের কারাদণ্ড দিয়ে রায় ঘোষণা করেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। তাদের মধ্যে আমির আলী, মো. জয়নাল আবদিন ও আবুল কালাম ওরফে এ কে এম মনসুরের মৃত্যুদণ্ডের রায় হয়েছে এবং আসামি মো. আব্দুল কুদ্দুসের ২০ বছরের কারাদণ্ড হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

 
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com