ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ৭ আসনে নির্বাচন, বেনাপোল-পেট্রাপোল সীমান্তপথে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ৭ আসনে নির্বাচন, বেনাপোল-পেট্রাপোল সীমান্তপথে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ৭ আসনে নির্বাচন, বেনাপোল-পেট্রাপোল সীমান্তপথে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ
ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ৭ আসনে নির্বাচন, বেনাপোল-পেট্রাপোল সীমান্তপথে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ

এম ওসমান : পঞ্চম দফায় ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ৭টি আসনে লোকসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। আসন গুলো হলো উলুবেড়িয়া, হাওড়া, শ্রীরামপুর, আরামবাগ, ব্যারাকপুর, হুগলি ও বনগাঁ কেন্দ্র। পশ্চিমবঙ্গ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ভারতীয় সীমান্ত এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। নির্বাচন উপলক্ষে সোমবার এক দিনের জন্য বেনাপোল-পেট্রাপোল সীমান্ত পথে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে বলে ওপারের কাস্টমস সিএন্ডএফ এজেন্ট সুত্রে জানা গেছে। তবে পাসপোর্টযাত্রী চলাচল স্বাভাবিক থাকবে। ওপারে আমদানি-রপ্তানি সংক্রান্ত কার্যক্রমের সাথে সম্পৃক্ত বন্দর ব্যবহারকারী বিভিন্ন সংগঠনের কর্মকর্তা-কর্মচারিরা তাদের ভোট প্রয়োগ করতে নিজ নিজ এলাকায় চলে যাওয়ার ফলে এ পথে কোন আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম হবে না। মঙ্গলবার সকাল থেকে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম যথারীতি নিয়মে চলবে।
এদিকে বনগাঁসহ অন্যান্য কেন্দ্রের নির্বাচনকে সামনে রেখে সীমান্তবর্তী জেলাগুলোতে নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে সীমান্ত এলাকাগুলো সিল করে দেয়া হয়েছে। ভোটের দিন কোন প্রকার বহিরাগত সন্ত্রাসী গোষ্ঠী সীমান্ত পেরিয়ে ওপার বাংলায় যাতে প্রবেশ করতে না পারে মূলত সে কারনেই নির্বাচন কমিশন এ নির্দেশ জারি করেছে। নির্দেশ পাওয়ার পর ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীসহ (বিএসএফ) বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার শক্তি বৃদ্ধি করা হয়েছে। বিএসএফ ও পুলিশ নজরদারি ও টহল বাড়িয়ে দিয়েছে। ভোট গ্রহণ প্রক্রিয়া শেষ না হওয়া পর্যন্ত সীমান্তে নিরাপত্তা ব্যবস্থা কঠোর থাকবে। প্রতিবারেই ভোটের আগে সীমান্ত সিল করে দেয়া হয়। তবে এবার নিরাপত্তা ব্যবস্থা অনেক কঠোর করা হয়েছে।
ভারতীয় নির্বাচন কমিশন বলেছেন, পশ্চিমবঙ্গে শান্তিপূর্ণ ভোট করানোর জন্যই এইসব পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। ভারত সীমান্তের প্রতিটি বিএসএফ ক্যাম্পে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত সৈন্য। রবিবার ভারত ফেরত পাসপোর্টযাত্রীরা জানায়, নির্বাচনকে সামনে রেখে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন সীমান্তপথে চেকপোষ্ট বসানো হয়েছে। এ সব চেকপোস্টে সাধারন মানুষের পাশাপাশি বাংলাদেশী পাসপোর্ট যাত্রীদেরও তল্লাশী করা হচ্ছে। সন্দেহ হলে করা হচ্ছে জিজ্ঞাসাবাদ। সীমান্ত এলাকা ছাড়াও ছোট বড় আবাসিক হোটেল, বাস ও রেলস্টেশনে পুলিশের নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। ভোটের দিন বিশেষ পুলিশী প্রহরায় ঢাকা-কলকাতা সরাসরি বাস যাতায়াত করতেও নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
ভারতের পেট্রাপোল সিএন্ডএফ এজেন্ট ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক কার্তিক চক্রবর্তী জানান, লোকসভা নির্বাচন উপলক্ষে আমদানি-রপ্তানি সংক্রান্ত কার্যক্রমের সাথে সম্পৃক্ত সিএন্ডএফ মালিক, কর্মচারি, হ্যান্ডলিং শ্রমিক, ট্রাক চালকরা তাদের ভোট প্রয়োগ করতে নিজ নিজ এলাকায় চলে যাওয়ার ফলে সোমবার এ পথে কোন আমদানি-রফতানি কার্যক্রম হবে না।
স্থানীয় বিজিবি‘র একজন কর্মকর্তা জানান, নির্বাচনের সময় বর্ডার একটু কড়াকড়ি থাকে। তবে এ সীমান্তে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। বিএসএফের পাশাপাশি বিজিবিও সতর্কতার সাথে সীমান্তে দায়িত্ব পালন করছে।
বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টমস কার্গো শাখার রাজস্ব কর্মকর্তা আজিজুর রহমান জানান, ভারতের পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন হওয়ায় সোমবার বেনাপোল-পেট্রাপোল পথে কোন আমদানি-রফতানি হবে না বলে ওপারের সিএন্ডএফ এজেন্টরা আগেই জানিয়ে দিয়েছেন। ভারত থেকে পণ্য নিয়ে আসা খালী ট্রাকগুলো সন্ধ্যার আগেই ভারতে ফিরে গেছে। তবে বেনাপোল কাস্টম হাউজে কার্যক্রম চলবে।
বেনাপোল স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের উপ-পরিচালক (ট্রাফিক) মামুন কবীর তরফদার জানান, ভারতে নির্বাচনের কারনে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকলেও বেনাপোল বন্দর থেকে পণ্য খালাস প্রক্রিয়াসহ লোড আনলোড স্বাভাবিক থাকবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com