সংবাদ শিরোনাম :
হবিগঞ্জে আ’লীগের সভাপতি জাহির, সম্পাদক আলমগীর মিস ওয়ার্ল্ডে বাংলাদেশ ও ভারতের দুই সুন্দরীর লড়াই নাগরিকত্ব বিল ভারতের ধর্মনিরপেক্ষ অবস্থানকে দুর্বল করবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী দেশীয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে বিনামূল্যে কুষ্ঠরোগের ওষুধ সরবরাহের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর টাকা দিয়ে প্রেমিক কিনছে চীনা মেয়েরা কাপড় কেচে রাতারাতি বিখ্যাত শিম্পাজি (ভিডিও) রোহিঙ্গা গণহত্যার উল্লেখই করলেন না সু চি বিচারপতির ছেলের বিরুদ্ধে সুমনের রিট শুনবেন না হাইকোর্ট সংখ্যালঘু নির্যাতনের রেকর্ড করেছিল বিএনপি: হবিগঞ্জে সম্মেলনে সেতুমন্ত্রী সরকারি নিষেধাজ্ঞা ভেঙে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাহাড় কাটার ধুম!
বিসিবিকে মাশরাফির ধন্যবাদ

বিসিবিকে মাশরাফির ধন্যবাদ

বিসিবিকে মাশরাফির ধন্যবাদ
বিসিবিকে মাশরাফির ধন্যবাদ

লোকালয় ডেস্কঃ স্কুল ক্রিকেট খেলে অনেক প্রতিভাধর খেলোয়াড়ই  হারিয়ে যান। অনেক উদীয়মান ক্রিকেটার আছে যারা বড় স্বপ্ন নিয়ে ক্রিকেট একাডেমিতে ভর্তি হয়েও নিয়মিত ম্যাচ খেলার সুযোগ পান না। শুধু মাত্র অনুশীলন করেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়। ফলে তাদের মাঝে যে ক্রিকেটীয় প্রতিভা থাকে তা বিকাশের সুযোগ তারা পান না।

সেই সব তরুণ ক্রিকেটীয় প্রতিভাদের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। ঢাকার ৩২টি একাডেমি নিয়ে একটি টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে যাচ্ছে বিসিবির গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটি। আগামী ২০ মে শুরু হতে যাওয়া এই টুর্নামেন্টের নাম বিসিবি একাডেমি কাপ।

শনিবার (১৯ মে) মিরপুর জাতীয় ক্রিকেট একাডেমির সামনে ছিল আসন্ন সেই টুর্নামেন্টের ট্রফি উন্মোচন। এই লক্ষ্যে সেখানে হাজির হয়েছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাবেক অধিনায়ক ও বিসিবি গেমস ডেভেলপমেন্ট চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ সুজন। ছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাবেক স্পিন স্পেশালিস্ট মোহাম্মদ রফিক ও বাংলাদেশ ক্রিকেটের ওয়ানডে দলপতি মাশরাফি বিন মর্তুজা।

অনুষ্ঠান শেষে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হন মাশরাফি। উদ্যোগটির প্রশংসা করেন। এরপর দেশের ক্রিকেটের উন্নয়নের লক্ষ্যে বিসিবির এমন উদ্যোগকে ধন্যবাদ জানান এই টাইগার দলপতি। ‘অবশ্যই খুব ভালো একটা উদ্যোগ। ক্রিকেট বোর্ডকে ধন্যবাদ, বিশেষ করে বিসিবির ডেভেলপমেন্ট কমিটিকে ধন্যবাদ, সুজন ভাইকে (খালেদ মাহমুদ) ধন্যবাদ। সাধারণত এ ধরনের টুর্নামেন্ট দেখা যায় না। ঢাকা লিগের বাইরের প্লেয়ারদের জন্য এটা বড় একটা সুযোগ। আশা করি তারা এখানে ভালো করলে বিভিন্ন ক্লাব থেকে শুরু করে বিসিবির আন্ডারে বিভিন্ন জায়গায় সুযোগ পেতে পারে। যারা খেলতে পারেনি, তাদের জন্য দারুণ একটা সুযোগ।’

টুর্নামেন্টটিকে তরুণ প্রতিভাবান ক্রিকেটারদের জাতীয় পর্যায়ে উঠে আসার নতুন এক প্ল্যাটফর্ম বলেও উল্লেখ করেন ম্যাশ।

‘দেখেন যত বেশি টুর্নামেন্ট হবে, যত বেশি খেলা হবে তত প্লেয়ার উঠে আসবে। এখন তো বিসিবির অধীনে বেশির ভাগ টুর্নামেন্ট শেষ, হয়তো দ্বিতীয় বা তৃতীয় বিভাগ বাকি আছে। এর বাইরেও একটা টুর্নামেন্ট যারা খেলছে তাদের জন্য এই উদ্যোগ। তারা যদি নিজেদের এক্সপ্রেস করতে পারে তাহলে কোনো ক্লাব বা বিসিবির অধীনে দলে সুযোগ পেতে পারে।’

উল্লেখ্য,

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com