বাসায় মশার প্রজননক্ষেত্র পাওয়া গেলে মালিকের বিরুদ্ধে জেল-জরিমানা

বাসায় মশার প্রজননক্ষেত্র পাওয়া গেলে মালিকের বিরুদ্ধে জেল-জরিমানা
বাসায় মশার প্রজননক্ষেত্র পাওয়া গেলে মালিকের বিরুদ্ধে জেল-জরিমানা

বার্তা ডেস্কঃ বাসাবাড়িতে এডিস মশার প্রজননক্ষেত্র পাওয়া গেলে ভবন মালিকের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ‘স্বচ্ছ ঢাকা’ কর্মসূচির অংশ হিসেবে সোমবার রাজধানীর নগরভবনে ডিএসসিসির স্বাস্থ্য বিভাগ আয়োজিত ‘মশকবাহিত রোগ প্রতিরোধ ও মশক নিয়ন্ত্রণ’ বিষয়ক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মেয়র বলেন, ‘আগামী ৮ এপ্রিল বাসাবাড়িতে ভ্রাম্যমাণ আদালত (মেবাইল কোর্ট) পরিচালনা করা হবে। তখন যে বাড়িতে এডিস মশার প্রজননক্ষেত্র পাওয়া যাবে বা লার্ভা পাওয়া যাবে, আইনানুযায়ী সেসব ভবন মালিকের বিরুদ্ধে অর্থদণ্ড, কারাদণ্ড এবং কোনো কোনো ক্ষেত্রে উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করা হবে।’

আইনের ব্যাখ্যা তুলে ধরে মেয়র বলেন, ‘পেনাল কোডের ২৬৯ এবং ২৭০নং ধারার আওতায় আমাদের দণ্ড দেওয়ার বিধান রয়েছে। আমরা চাই না কোনো নাগরিক কোনোক্রমে বিব্রত অবস্থার মধ্যে পড়ুক। পাশাপাশি এও চাই, কারো কোনো অবহেলার কারণে অন্য কোনো নাগরিক যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হন।’

সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘বাসাবাড়ি বা বাড়ির আঙিনায় পরিত্যক্ত টায়ার বা কন্টেইনারে স্বচ্ছ পানি জমে থাকলে পরিচ্ছন রাখতে আগামীকাল থেকে সংবাদমাধ্যমে গণবিজ্ঞপ্তি দেওয়া হবে। একইসঙ্গে ১ লাখ ৬৫ হাজার বাসাবাড়িতে সচেতনতামূলক গণবিজ্ঞপ্তি পৌঁছে যাবে। প্রত্যেক বাড়ির মালিককে এই গণবিজ্ঞপ্তি বা নোটিশ জারি করা হবে। নোটিশে উল্লেখ থাকবে ভবনগুলো পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখবেন, কোনোক্রমে কোনো অবস্থাতেই যেন এডিস মশার প্রজননক্ষেত্র না থাকে, এটা নিশ্চিত করবেন।’

নিয়মিত এ কার্যক্রম ২০ মার্চ থেকে ৭ এপ্রিল পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে এবং ৮ এপ্রিল ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে বলে তিনি জানান।

সভা শেষে মেয়র সাঈদ খোকন আনন্দবাজার এলাকায় আকস্মিক অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় এলাকার যেসব দোকান মালিক ফুটপাত দখল করে ময়লা-আবর্জনার স্তূপ করে রেখেছিল তাদের এগুলো সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দেন। এরপর এসব এলাকায় আবর্জনা পেলে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন।

সংস্থার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলালের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রি. জে. শেখ সালাহউদ্দীন, স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক মুজিবুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com