বাংলাদেশি রোগীর সর্বস্ব চুরি করলেন মামা

বাংলাদেশি রোগীর সর্বস্ব চুরি করলেন মামা

বনগাঁ থানার কর্মকর্তাদের সঙ্গে গ্রেপ্তার হওয়া আইনাল (বসে থাকা বাঁ থেকে প্রথম)।

কলকাতা প্রতিনিধি: ২২ বছরের বাংলাদেশি এক তরুণ তারিক হাসান কিডনি প্রতিস্থাপনের জন্য বাবা লুৎফর রহমানের সঙ্গে এসেছেন কলকাতায়। তাঁরা ওঠেন কলকাতার বাইপাস রোডের এক নামী হাসপাতালের কাছের রেস্ট হাউসে। ওই হাসপাতালেই চিকিৎসা হবে তারিক হাসানের।

১৭ জানুয়ারি বাংলাদেশের নওগাঁর গ্রাম থেকে আসেন তারিকের মামা আইনাল হক। আইনাল তাঁর একটি কিডনি দান করবেন ভাগনের জন্য। সেভাবে পাসপোর্ট ভিসাসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে তিনি পা রাখেন কলকাতায়। আইনাল গরিব বিধায় এবং পরিবারের ভবিষ্যতের কথা ভেবে একটি কিডনি ভাগনেকে দিতে তিনি সম্মত হন।

কিন্তু হঠাৎ করেই খোয়া যায় লুৎফর ও তাঁর ছেলে তারিকের মুঠোফোন, পাসপোর্ট, অর্থসহ চিকিৎসা-সংক্রান্ত কাগজপত্র। উধাও হয়ে যান তারিকের মামা আইনাল। এ অবস্থায় চিকিৎসা তো দূরের কথা লুৎফর ও তারিকের দেশে ফেরা নিয়ে দেখা দেয় অনিশ্চয়তা। ৩ ফেব্রুয়ারি লুৎফর ওই এলাকার পূর্ব যাদবপুর থানা-পুলিশের শরণাপন্ন হন। তাঁরা মামলা করেন।

পুলিশ এরপর আইনালের মুঠোফোন ট্র্যাক করে দক্ষিণ ২৪ পরগনার সোনারপুর থানা এলাকার কুম্ভমণ্ডল পাড়ার মুজিবর মণ্ডল নামের এক যুবকের সন্ধান পায়। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে মুজিবর জানান, আইনালকে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেওয়ার জন্য সাহায্য করছেন স্মরজিৎ দাস নামের বনগাঁ সীমান্তের এক যুবক। রোববার রাতেই তাঁকে সীমান্ত পার করার কথা।

এরপর পুলিশ স্মরজিৎ দাসকে তাঁর বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে। তাঁর কাছ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী বনগাঁ থানার পুলিশ রোববারই বনগাঁর সীমান্ত এলাকা থেকে আইনুলকে ধরে ফেলে। উদ্ধার হয় চুরি যাওয়া অর্থ ও নথিপত্রের অধিকাংশই। আইনাল, মুজিবর ও স্মরজিৎ—তিনজনকেই পুলিশ গ্রেপ্তার করে।

জেরার মুখে আইনাল পুলিশকে জানান, তাঁর তেমন রোজগার নেই। মেয়ে বড় হচ্ছে, তাই টাকার দরকার ছিল। এ জন্যই একটি কিডনি বিক্রি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। আইনাল দাবি করেন, তাঁকে তার ভগ্নিপতি একটি কিডনির জন্য সাড়ে তিন লাখ টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলেও শেষ পর্যন্ত তা দেননি। তাই রাগের বশবর্তী হয়ে তিনি টাকাপয়সা চুরি করে পালিয়ে যান। লুৎফর পুলিশকে বলেছেন, আইনালের সঙ্গে তাঁর কোনো আর্থিক চুক্তির কথা হয়নি। বলা হয়েছিল, ভবিষ্যতে আইনালের যাতে কোনো অসুবিধা না হয়—সে দিকটি তিনি দেখবেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com