সংবাদ শিরোনাম :
শুল্ক ফাঁকির শতাধিক বিলাসবহুল গাড়ি এখন সিলেটে! দুবাইয়ে চাকরি দেয়ার কথা বলে টাকা আত্মসাত ॥ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা অবশেষে আবর্জনামুক্ত হচ্ছে হবিগঞ্জ শহরে আধুনিক স্টেডিয়ামের পাশ হবিগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে জামায়াত নেতাকর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা অপরাধ কর্মকাণ্ড রোধে সতর্ক পুলিশ শাহজীবাজার মাজারে প্রশাসনের আদেশ অমান্য করে কাফেলার আয়োজন সংবাদ প্রকাশের পর গার্নিং পার্কে মিনি পতিতালয়ের সন্ধান ডিবির অভিযানে ৫ কলগার্লসহ ৩ খদ্দর আটক কোরেশনগরে হোটেল যুবরাজ থেকে লাশ উদ্ধার ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে ফাইনালে আর্জেন্টিনা ছেলের বিয়ের দাওয়াতে বের হয়ে বাড়ি ফেরা হলো না মায়ের
‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন শেখ হাসিনা বাস্তবায়ন করছেন’

‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন শেখ হাসিনা বাস্তবায়ন করছেন’

বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে খুনিরা তাঁর স্বপ্নের বাস্তবায়ন কিছুদিনের জন্য ব্যাহত করতে পারলেও তাঁর সুযোগ্য কন্যার নেতৃত্বে সে স্বপ্ন আজ বাস্তবায়িত হচ্ছে। আজ বুধবার সংসদে ঐতিহাসিক ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে এক অনির্ধারিত আলোচনায় শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশে ফিরে ১২ জানুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে সরকারের দায়িত্ব নিয়ে যুদ্ধ বিধ্বস্ত বাংলাদেশকে গড়ে তোলার কাজে হাত দেন। সাড়ে ৩ বছরে তিনি দেশকে একটি অবস্থানে নিয়ে এসেছিলেন। অর্থনৈতিক স্বাধীনতা অর্জনের দ্বিতীয় বিপ্লবের ঘোষণা দিয়েছিলেন। কিন্তু ’৭৫’র ১৫ আগস্ট খুনি মোস্তাকরা সপরিবারে বঙ্গবন্ধুকে নৃশংসভাবে হত্যা করে দেশের উন্নয়নের চাকা পেছনের দিকে ঠেলে দেয়।
আমির হোসেন আমু বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে তারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধকে হত্যা করেছিল। পাশাপাশি দেশকে একটি নব্য পাকিস্তানে পরিণত করেছিল।
শিল্পমন্ত্রী বলেন, বাঙালি জাতির সৌভাগ্যের বিষয় যে, বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নানা চড়াই-উৎরাই, জেল-জুলুম সহ্য করে সরকারের দায়িত্বে এসে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের দ্বিতীয় বিপ্লব সুখী-সমৃদ্ধ, দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তুলতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। দেশ ইতোমধ্যে নিম্নমধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে। অচিরেই মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে। ’৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ দেশে পরিণত হবে।
তিনি বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের দূরদর্শী নেতৃত্বের কারণে দেশ আজ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে। তাঁর সুদক্ষ নেতৃত্বের কারণে তিনি ‘স্টার অব দ্যা ইস্ট’ উপাধিতে ভূষিত হয়েছেন। পাশাপাশি বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নাগরিকদের আশ্রয় দিয়ে বিশ্বে ‘মাদার অব হিউম্যানিটি’ উপাধিতেও ভূষিত হয়েছেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com