বঙ্গবন্ধুকে হত্যার উদ্দেশ্য ছিল দেশের স্বাধীনতা-অর্থনীতিকে ধ্বংস করা: শিল্পমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার উদ্দেশ্য ছিল দেশের স্বাধীনতা-অর্থনীতিকে ধ্বংস করা: শিল্পমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার উদ্দেশ্য ছিল দেশের স্বাধীনতা-অর্থনীতিকে ধ্বংস করা: শিল্পমন্ত্রী
বঙ্গবন্ধুকে হত্যার উদ্দেশ্য ছিল দেশের স্বাধীনতা-অর্থনীতিকে ধ্বংস করা: শিল্পমন্ত্রী

শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেছেন, ‘বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে ষড়যন্ত্রকারীরা দেশের স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধ্বংস করতে চেয়েছিল। এ হত্যার উদ্দেশ্য ছিল দেশের স্বাধীনতা এবং অর্থনীতিকে ধ্বংস করা। সব ষড়যন্ত্র কাটিয়ে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে।’
সোমবার (২ ডিসেম্বর) শিল্প মন্ত্রণালয় এবং ইকোনমিক রিপোর্টার্স ফোরামের (ইআরএফ) যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত ‘চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য উন্নয়ন নীতিমালা-২০১৯ অবহিতকরণ’ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। রাজধানীর পুরানা পল্টনে অবস্থিত পল্টন টাওয়ারে ইআরএফ’র নিজস্ব কার্যালয়ে কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের সচিব আব্দুল হালিম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার ও ইআরএফ’র সভাপতি সাইফুল ইসলাম দিলাল। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শাহীন আহমেদ।
শিল্পমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী চামরাজাত পণ্যকে বহুমুখীকরণের ওপর গুরুত্ব দিচ্ছেন। হাজারীবাগ থেকে ট্যানারি শিল্পকে সাভারের নির্ধারিত পল্লিতে স্থানান্তর ছিল একটি সাহসী পদক্ষেপ।’
ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে শিল্পমন্ত্রী বলেন, ‘আপনাদের সব সুবিধা সরকার দেবে। আপনারা ব্যবসা করবেন। এ সরকার শিল্পবান্ধব। অসাধু ব্যবসায়ীরা জনগণকে জিম্মি করতে চায়। এ বিষয়টি সরকারকে অবহিত করা সাংবাদিকদের দায়িত্ব। আপনারা সেই দায়িত্ব পালন করুন।’
নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেন, ‘বাংলাদেশ তৈরি পোশাক শিল্প আরএমজি সেক্টরকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র আছে। এটি মোকাবিলা করে এ শিল্পকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। একই সঙ্গে ২০২৪ সালের মধ্যে চামড়াজাত পণ্য রফতানির মাধ্যমে পাঁচ বিলিয়ন মার্কিন ডলার আয়ের যে লক্ষ্যমাত্রা সরকার নির্ধারণ করেছে সেটি অর্জন করতে হবে।’
শিল্পমন্ত্রী বলেন, ‘আগামীতে যে ট্যানারি স্থাপিত হবে সেগুলো হবে আধুনিক ট্যানারি। সাভার শিল্প নগরীতে বরাদ্দ করা ১১টি প্লট সরকার বাতিল করেছে। কারণ এ সমস্ত প্লট মালিকরা শর্ত অনুযায়ী কাজ করেনি।’
ইআরএফ’র সাধারণ সম্পাদক এসএম রাশেদুল ইসলামের সঞ্চালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব বেগম পরাগ। সেমিনারে বিভিন্ন গণমাধ্যমের ৮০ জন রিপোর্টার অংশগ্রহণ করেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com