নৌকার পাশে থাকুন: প্রধানমন্ত্রী

নৌকার পাশে থাকুন: প্রধানমন্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্ট ॥   যশোর ঈদগাহ ময়দানে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজতি জনসভায় নেতা র্কমীদরে প্রতি হাত নেড়ে শুভচ্ছো জানান প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নৌকা প্রতীকে ভোট চয়েছেনে। তিনি বলেন ‘অতীতের মতো আগামী নির্বাচনেও নৌকার পাশে থাকুন। আমরা দেশের মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করছি আগামীতওে করব।’

রোববার যশোর ঈদগাহ ময়দানে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতথিরি বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। যশোরের ভবদহ সমস্যার ব্যাপারে শেখ হাসিনা বলেন, ‘এ অঞ্চলের জলাবদ্ধতা দূর করার জন্য কপোতাক্ষসহ ভৈরব নদের জলাবদ্ধতা যদি দূর করতে পারি তাহলে ভবদহের পানি নিস্কাশনও সহজ হয়ে যাব। ভবদহ সংস্কাররেও আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি ।

জনসভায় সভাপতত্বি করেন জেলা আওয়ামী লীগরে সভাপতি শহীদুল ইসলাম মিলন। সভা পরচিালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার। জনসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যশোরের ২৮টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের ঘোষণা দেন।

বিএনপির চেয়ার পারসন খালেদা জিয়া ও তাঁর দুই ছেলের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে প্রধানমন্ত্রী বলনে, ‘খালেদা জিয়ার এক ছেলে দেশের টাকা পাচার করে আমেরিকায় ধরা পড়েছে ।

আরেক এক ছেলে সিঙ্গাপুরে ধরা পড়েছে । ওই টাকা আমরা ফিরিয়ে এনে দেশের কাজে লাগিয়েছি। তাদের মা-ও কম যান না। তিনি (খালেদা জিয়া) এদিমদের টাকা মেরে খান।’

বিএনপি-জামায়েতের শাসনামলরে বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি-জামায়েত জোট ভূতরে মতো দেশ চালিয়েছে। কথায় আছে ভূত পেছন দিকে হাটে । বিএনপিও ক্ষমতায় থাকলে ভূতের পেছন দিকে হাটে। তারা ক্ষমতায় এলে হত্যা, সন্ত্রাস, লুটপাট ও সন্ত্রাস বেড়ে যায়। অন্যদিকে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় গেলে দেশের উন্নয়ন হয়। মানুষ শান্তিতে থাকে।

পদ্মা সেতু নির্মাণের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি শেখ হাসিনা, জাতির পিতার কন্যা। আমি দুর্নীতি করতে আসিনি । বিশ্বব্যাংক পদ্মা সেতু নির্মাণে আমাদের দুর্নীতি প্রমাণ করতে পারেনি। আমরা নিজেদের টাকায় পদ্মা সেতু নির্মাণ করেছি। শুধু সেতুনয়; পদ্মা সেতুর সঙ্গে রেললাইনও করা হচ্ছে। ওই রেললাইন ঢাকা থেকে যশোর-খুলনা হয়ে মোংলায় যাবে।

এর আগে বেলা ১১টা ১০ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যশোর বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান বিমানঘাঁটিতে হেলিকাপ্টারে করে নামেন। সেখানে বিমান বাহিনীর রাষ্ট্রপতি কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির হিসেবে অভিবাদন গ্রহণ করেন। সেখানে বিমান বাহিনীর ৭৯ জন ফ্লাইট ক্যাডেটকে তিনি কমিশন প্রদান করেন। এর মধ্যে ১৩ জন নারী ক্যাডেট রয়েছেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com