নবীগঞ্জের জেএসসি পরিক্ষার্থীর রোল নং নিয়ে অনিয়ম দূর্নীতির অভিযোগ

নবীগঞ্জের জেএসসি পরিক্ষার্থীর রোল নং নিয়ে অনিয়ম দূর্নীতির অভিযোগ

নবীগঞ্জের জেএসসি পরিক্ষার্থীর রোল নং নিয়ে অনিয়ম দূর্নীতির অভিযোগ
নবীগঞ্জের জেএসসি পরিক্ষার্থীর রোল নং নিয়ে অনিয়ম দূর্নীতির অভিযোগ

মুজিবুর রহমান, নবীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ নবীগঞ্জ উপজেলার  আউশকান্দি র,প, উচ্চ বিদ্যালয়ের  জে,এস,সি  পরিক্ষার্থী রোহেনা বেগম নামের ছাত্রীর   রোল নং পিছিয়ে অত্র প্রতিষ্টানের অভিভাবক প্রতিনিধির মেয়েকে উক্ত নাম্বার দেওয়ার ঘটনায় এলাকায় অভিভাবক সহ সচেতন মহলের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। প্রতিবাদ সভায় ৫ দিনের আল্টিমেটাম দিয়েছেন সচেতন মহলের লোকজন।
জানাযায়,
ওই উপজেলার দীঘলবাক ইউনিয়নের  রঘু দাউদ পুর গ্রামের দিনমজুর নুরুল ইসলামের কন্যা ও
আউশকান্দি র,প উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী   জে এস সি পরিক্ষার্থী রোহেনা বেগমের  শ্রেণী  রোল নং (২০) ছিল,  কিন্তু প্রবেশ পত্রতে অনিয়ম, দূর্ণীতি করে  ১৬৫  এনে রেজিষ্টেশন করা হয়।অভিযোগে উল্লেখ   গোপলার বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও  আউশকান্দি  স্কুল এন্ড কলেজের অভিভাবক প্রতিনিধি  তফাজ্জূল হকের  মেয়ের শ্রেণী রোল নং ছিল  ৮৪ , তবে এই রোল নং  পরিবর্তন করে    ক্ষমতার অপব্যবহার করে বর্তমানে রোল নং ২০ নাম্বারে এনে পরিক্ষায় অংশ গ্রহন করে প্রভাবশালী তফাজ্জূল হকের মেয়ে। অনিয়ম এবং দূর্ণীতির  মাধ্যমে ৮৪ নং রোল নাম্বারের ছাত্রীর রোল নং ২০ নাম্বারে   স্থানান্তর করে প্রকৃত শ্রেণী রোল নং ২০ এর ছাত্রী দিনমজুরের কন্যা রোহেনা বেগমের    প্রবেশপত্রে ১৬৫ নাম্বার দিয়ে  রেজিষ্টেশন করা হয়।
 এদিকে  অভিভাবক প্রতিনিধি তোফাজ্জুল হকের দুই কন্যা একই ক্লাসের ছাত্রী ও জেএসসি  পরিক্ষার্থী হওয়াতে তাদের  রোল নং পাশাপাশি উনিশ/বিশ করে দেয়া হয়। এবিষয়ে স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ লুৎফর রহমানের নিকট হয়রানীর শিকার রোহেনার পিতা বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে, তিনি তাঁকে উল্টো হুমকি ধামকি দেন বলেও অভিযোগ ওঠে।
 সম্প্রতিঃ
এই ঘটনায় দিনমজুর নুরুল ইসলাম স্থানীয় গনমান্য ব্যক্তিদেরকে নিয়ে স্কুল প্রধান শিক্ষক সহ গভাণিং বডির সভাপতি ও  কমিটির প্রতিনিধিদের নিকট  বিচারপ্রার্থী হলে উনারা বিষয়টি সমাদান করতে পারবেন না মর্মে  আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার পরামর্শ দেন তারা। উক্ত ঘটনায় অত্র প্রতিষ্টানের  প্রধান শিক্ষক বলেন এই বিষয়ে আমাদের কিছু করার নেই,যাহা কিছু হয়েছে সেটা শিক্ষাবোর্ডের কাজ, এর বেশি কিছু বলতে তিনি নারাজ। অবশেষে
এই ঘটনায় নিরুপায় হয়ে  গত ১ নভেম্বর হয়রানীর শিকার  স্কুলছাত্রী রোহেনার পিতা মোঃ নুরুল ইসলাম বাদী হয়ে নবীগঞ্জ  উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
এই আলোচিত ও সমালোচিত ঘটনায় অভিভাবক সহ সচেতন মহলের মধ্যে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে, দেখা দেয়  চাপাক্ষোভ ও চরম  উত্তেজনা।  এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল সোমবার বিকেলে এলাকার সচেতন মহলের আহবানে  এলাকায় মাইকিং করে আউশকান্দি হীরাগঞ্জ মধ্যবাজারস্থ এক বিশাল প্রতিবাদ সভা অনুষ্টিত হয়। এতে অংশ গ্রহন করেন,অভিভাবক সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
বক্তব্য রাখেন,এলাকার বিশিষ্ট মুরব্বি ও অত্র প্রতিষ্টানের গভাণিং বডির সাবেক সভাপতি    হাজী আতাউর রহমান, হাজী সিরাজ মিয়া,হাজী শাহনূর মিয়া, আওয়ামীলীগের প্রবীণ নেতা  হাজী মোঃ আব্দুর রউপ,শ্রমিক নেতা তজমুল হক,দিলশাদ মিয়া, খালিছ মিয়া, কাছন মিয়া,আঃ আহাদ, মহসিন আহমেদ,মাওলানা মোশাহিদ আলী,
 ফকির ফজলু মিয়া,জয়নাল আবেদীন,মোঃ লেবু মিয়া,সাংবাদিক এম মুজিবুর রহমান,ইউপি সদস্য ফখরুল ইসলাম জুয়েল, নুনু মিয়া সহ আরো অনেকে।এতে উপস্থিত ছিলেন এলাকার সহস্রাধিক জনতা সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।
এব্যাপারে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার  তৌহিদ বিন হাসান এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি অভিযোগ পেয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য  নির্দেশ দিয়েছি।
অপরদিকে প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন,যদি ৫দিনের মধ্যে এই বিষয়টি সুরাহা না করা হয় পরবর্তীতে এলাকার সর্বস্তরের মানুষকে সাথে নিয়ে কঠোর
আন্দোলনের হুশিয়ারী দেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

 
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com