নবীগঞ্জের আউশকান্দিতে ঈদগাহ’র জায়গা নিয়ে ইউপি সদস্য উস্তার আলী ও স্থানীয় পত্রিকায় মিথ্যা সংবাদের বিরুদ্ধে বিশাল প্রতিবাদ ।

নবীগঞ্জের আউশকান্দিতে ঈদগাহ’র জায়গা নিয়ে ইউপি সদস্য উস্তার আলী ও স্থানীয় পত্রিকায় মিথ্যা সংবাদের বিরুদ্ধে বিশাল প্রতিবাদ ।

নবীগঞ্জের আউশকান্দিতে ঈদগাহ’র জায়গা নিয়ে ইউপি সদস্য উস্তার আলী ও স্থানীয় পত্রিকায়
মিথ্যা সংবাদের বিরুদ্ধে বিশাল প্রতিবাদ সভা

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ নবীগঞ্জের আউশকান্দি ইউনিয়নের ইউপি সদস্য কর্তৃক মিথ্যা মামলা ও মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের দায়ে ফুসে ওটেছেন এলাকার সর্ব সাধারন। গতকাল মঙ্গলবার বাদ আছর আউশকান্দি ঈদগাহ মাঠে বিশাল প্রতিবাদ সভায় সাবেক মেম্বার হাজী আব্দুর রুপ এর সভাপতিত্বে ও সাইদুর রহমানের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, আউশকান্দি হীরাগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাবেক সভাপতি মুরশেদ আহমদ, হাজী আব্দুল হামিদ নিকছন, আব্দুল জব্বার সহ আরো অনেকেই। বক্তারা তাদের বক্তব্যে বলেন, মামলার বাদী শিরিন আক্তার সাবেক এস.এ ৫৬৩ দাগে অবস্থা করছে। বাদীর পূর্ব মালিকের সাথে প্রায় ৩০ বছর পূর্ব থেকেই ঈদগার বাউন্ডারী বৃদ্বমান রয়েছে। এমন কি পাশের দাগ আউশকান্দি মৌজার এস.এ দাগ ৫৬২ ঈদগার ভূমি হিসাবে।

আছে। বাদী অবৈধ ভাবে ঈদগার ৫৬২ দাগের ভূমি নেয়ার পায়তারা করছে। ঈদগাহ কমিটি কোন সময়ই বাদীর দাগের কোন জায়গায়ই অবস্থান করেন নি। ঈদগার ভূমির সাথে বাদীর ভূমির কোন সম্পর্ক নাই। এমন কি রায়পুর ফরগনা আগনা বর্তমান আউশকান্দি হাসপাতাল অবস্থিত। উস্তার মেম্বারের গ্রাম রায়পুর ফরগনা কুর্শা। সে এই নামের সূত্র ধরে এহেন মিথ্যাচার করে আসছে। এরই জের ধরে ইউপি সদস্য হাসান আলী উস্তার মিথ্যা মামলা দায়ের করে নবীগঞ্জ ও হবিগঞ্জ থেকে প্রকাশিত বিভিন্ন স্থানীয় পত্র পত্রিকায় মিথ্যা, বানোয়াট, কাল্পনীক ও মানহানিকর সংবাদ প্রকাশ করে গত সোমবারে। এ সংবাদ পড়ে ৪ মৌজার সর্ব সাধারনের মধ্যে তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করে। এতে পরদিন মঙ্গলবার আউশকান্দি, মিঠাপুর, উত্তর দৌলতপুর, উলুকান্দি’র ৪ মৌজার লোকজন বিশাল প্রতিবাদ সভা করে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। এমনকি সংবাদে আরো বলা হয়েছে যে, আদালতের নিষেধাজ্ঞা আছে বলেও প্রকাশ করে। তাও সম্পূন্ন মিথ্যা। যা সাক দিয়ে মাছ ডাকার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে ভূমি খেকো ইউপি সদস্য হাসান আলী উস্তার। আমরা তার প্রতিটি মিথ্যার জবাব আইনের মাধ্যমে দেব। উক্ত প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত ছিলেন, বিশিষ্ট মুরুব্বি মোঃ খলিল মিয়া, জলিল মিয়া, গফুর মিয়া, সিরাজুল ইসলাম, কুরুস মিয়া, লেচু মিয়া, আব্দুল হক, আব্দুর রহমান, আব্দুর রকিব, আব্দুল হামিদ, কাজী আব্দুল বাছিত, তুফায়েল আহমদ, সুকুর মিয়া, সুন্দর মিয়া, আশিক মিয়া, কাজী সেলিম, ফরিদ মিয়া, শাহ আশরাফ আলী, শামীম আহমদ, তুহিন মিয়া, হাবিবুর রহমান সহ আরো অনেকেই। উক্ত সভায় এ মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করায় হাসান আলী উস্তারের বিরুদ্ধে সভা সিন্ধান্ত হয় যে, এ ব্যাপারে ঈদগাহ কমিটি সহ ৪মৌজার লোকজন আইনী প্রক্রিয়ায় যাওয়ার একমত পোষন করেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com