সংবাদ শিরোনাম :
নবীগঞ্জে গরু ধান খাওয়াকে কেন্দ্র করে গরু রাখাল খুন ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ যুব সমাজ চুনারুঘাটের আহম্মদাবাদ ইউনিয়নজুড়ে জুয়া ও মাদকের ছড়াছড়ি মাধবপুরে মালিকানার জোর দেখিয়ে পথচলায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি!  চুনারুঘাটে শিক্ষা ব্যবস্থায় ধস, ক্ষুব্ধ অভিভাবকরা লাখাইয়ে ডাকাতদলের সদস্য গ্রেপ্তার শায়েস্তাগঞ্জে পচাঁবাসি খাবার বিক্রির অভিযোগে ফার্দিন মার্দিন রেষ্টুরেন্টকে জরিমানা চুনারুঘাটে ৮ বছরের শিশু ধর্ষণের শিকার অনিয়মের দায়ে এয়ার লিংক ক্যাবল টিভি নেটওয়ার্ককে জরিমানা বানিয়াচংয়ে এক নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার হবিগঞ্জে অকৃতকার্য বেড়েছে ৩ গুণের বেশি
দেশজুড়ে আবার গণটিকাদান শুরু

দেশজুড়ে আবার গণটিকাদান শুরু

http://lokaloy24.com
http://lokaloy24.com

লোকালয় ডেস্ক:দেশে এখন অক্সফোর্ড, সিনোফার্ম, ফাইজার ও মডার্নার টিকা আছে। টিকার মজুত এখন ৫৮ লাখ ৫৪ হাজারের কিছু বেশি।

দেশে প্রথম পর্যায়ে গণটিকাদান শুরু হয়েছিল ৭ ফেব্রুয়ারি। শুরুতে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা দেওয়া হয়। দ্বিতীয় ডোজ নিশ্চিত না করেই ৫৮ লাখ ২০ হাজারের বেশি মানুষকে ওই টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া হয়। এর মধ্যে ৪৩ লাখ ৯৫ হাজার ২১৮ জনকে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া সম্ভব হয়েছে। গতকাল রোববার ঢাকার একটি ও কুমিল্লার একটি কেন্দ্রে ৩০৭ জনকে এই টিকা দেওয়া হয়েছে। এখনো ১৫ লাখ ২৪ হাজারের বেশি মানুষ দ্বিতীয় ডোজের অপেক্ষায় আছে।

গতকাল স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত সংবাদ বুলেটিনে মাতৃ, নবজাতক ও শিশু স্বাস্থ্য কর্মসূচির পরিচালক সামসুল হক বলেন, কোনো টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন এমন ব্যক্তিদের দ্বিতীয় ডোজ হিসেবে অন্য টিকা নেওয়া ঠিক হবে না। জুলাই মাসের শেষ দিকে বা আগস্ট মাসে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা দেশে আশার সম্ভাবনা আছে।

দেশে এ পর্যন্ত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা এসেছে ১ কোটি ৩ লাখ। এর মধ্যে ৭০ লাখ টিকা সেরাম ইনস্টিটিউটের কাছ থেকে কেনা। বাকি ৩৩ লাখ টিকা ভারতের কাছ থেকে উপহার হিসেবে পাওয়া। উপহার হিসেবে চীন সিনোফার্মের ১১ লাখ টিকা দিয়েছে। সরকার সিনোফার্মের টিকা কিনেছে দেড় কোটি, এর মধ্যে দেশে এসেছে ২০ লাখ। অন্যদিকে করোনা টিকা সংগ্রহ ও বিতরণের বৈশ্বিক উদ্যোগ কোভ্যাক্স পাঠিয়েছে ফাইজারের টিকা ১ লাখ এবং মডার্নার টিকা ২৫ লাখ। সব মিলিয়ে দেশে এখন টিকার মজুত আছে ৫৮ লাখ ৫৪ হাজারের কিছু বেশি।

সরকারি কর্মকর্তারা বলেছেন, চীন থেকে কেনা বাকি টিকা সেপ্টেম্বরের মধ্যে দেশে আসার কথা রয়েছে। কোভ্যাক্স থেকে আগস্টের প্রথম ভাগে আসবে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ৩৫ লাখ টিকা। এ ছাড়া অন্যান্য টিকা প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ও দেশ থেকে টিকা কেনার চেষ্টা অব্যাহত আছে। টিকা কেনার জন্য যথেষ্ট বরাদ্দও আছে। সরকার দেশের মোট জনসংখ্যার ৮০ শতাংশ মানুষকে টিকার আওতায় আনতে চায়।

কোথায় কোন টিকা

দ্বিতীয় পর্যায়ে গণটিকাদানের আওতায় ঢাকা দক্ষিণ, ঢাকা উত্তর, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, বরিশাল, খুলনা, রাজশাহী, রংপুর, ময়মনসিংহ, সিলেট—এই ১২টি মহানগরে আগামীকাল থেকে শুধু মডার্নার টিকা দেওয়া হবে। অন্যদিকে দেশের বাকি সব জেলা শহর ও উপজেলায় আজ দেওয়া হবে সিনোফার্মের টিকা। সরকারি কর্মকর্তারা বলছেন, তাপমাত্রার স্পর্শকাতরতার কারণে মহানগরগুলোতে মডার্নার টিকা দেওয়া হবে। যে তাপমাত্রায় মডার্নার টিকা সংরক্ষণ দরকার, তেমন ধরনের ব্যবস্থা দেশের সব জেলা শহর বা উপজেলা পর্যায়ে নেই। মডার্নার টিকা ও সিনোফার্মের টিকার কার্যকারিতায় কোনো পার্থক্য নেই।

স্বাস্থ্যকর্মীসহ অগ্রাধিকারের তালিকায় থাকা বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে টিকা দেওয়ার মধ্য দিয়ে গত ফেব্রুয়ারিতে প্রথম গণটিকাদান শুরু হয়। শুরুতে অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা দেওয়া হয়েছিল। টিকার মজুত কমে এলে নিবন্ধন স্থগিত রাখা হয়। সীমিত হয়ে পড়ে টিকাদান। ঢাকা শহরের একটি কেন্দ্রে গতকালও অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা দেওয়া হয়েছে। কুমিল্লা মেডিকেল কলেজেও এই টিকা দেওয়া চলছিল। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, আজকের পর তার আর এই টিকা দিতে পারবে না।

গত জুনে দেশে সিনোফার্মের টিকা এলে মেডিকেল, নার্সিং ও মেডিকেল টেকনোলজির শিক্ষার্থীদের তা দেওয়া শুরু হয়। এ ছাড়া এ দেশে থাকা চীনের নাগরিকদের এই টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। এর বাইরে আগে নিবন্ধন করা ব্যক্তিদেরও সীমিত আকারে টিকা দেওয়া চলছিল।

গতকাল কুষ্টিয়া শহরের কলকাকলি বিদ্যালয় কেন্দ্রে সিনোফার্মের টিকা দেওয়া হয়। তবে সেখানে সকাল সাতটা থেকে টিকা নিতে আসা মানুষের ভিড় বাড়তে থাকে।

কুষ্টিয়া সিভিল সার্জন এইচ এম আনোয়ারুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, গত শনিবার শুধু ৩২৬ জনকে রোববার (গতকাল) টিকা নেওয়ার জন্য এসএমএস পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু মানুষ এসএমএস ছাড়াও শুধু টিকা কার্ড নিয়ে টিকা নিতে এসেছে। কাউকে কিছু বলতে পারছেন না। তিনি আরও বলেন, পরিস্থিতি সামাল দিতে সেখানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

অন্যদিকে ফাইজারের টিকা দেওয়া হয় শুধু ঢাকা শহরে। সে ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পান বিদেশগামী প্রবাসী শ্রমিকেরা। প্রবাসী শ্রমিকেরা এত দিন শুধু ঢাকার সাতটি কেন্দ্রে নিবন্ধন করে টিকা নিচ্ছিলেন। আগামীকাল থেকে তাঁরা নিজ নিজ বিভাগে নিবন্ধন করে মডার্নার টিকা নিতে পারবেন। তাঁদের আর ঢাকায় আসার দরকার হবে না।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদেরও টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মকর্তা প্রথম আলোকে বলেন, ধারণা করা হচ্ছে, এ ধরনের শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৫০ হাজারের বেশি। শুধু চীনেই পড়াশোনা করেন ৫ হাজারের বেশি। এঁদের টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। কিন্তু প্রক্রিয়াগত কিছু জটিলতার কারণে তাঁদের নিবন্ধন শুরু করা যাচ্ছে না। বিশেষ করে তাঁদের কাগজপত্র যাচাই করার কাজটি বেশ কঠিন। তবে এসব শিক্ষার্থীকেও নিজ নিজ বিভাগে নিবন্ধন করে টিকা নিতে হবে।

নিবন্ধন চলছে

টিকার নিবন্ধনের বয়সসীমা কমিয়ে ৩৫ বছর করা হয়েছে। www.surokkha.gov.bd ঠিকানায় দেশের যেকোনো জায়গা থেকে নিবন্ধন করা যাচ্ছে।

বয়সসীমা কমানোর কারণে এবং নতুন নতুন টিকা আসার খবরে নিবন্ধন বেড়েছে। ভারত থেকে টিকা আসার অনিশ্চয়তার মুখে সরকার একসময় নিবন্ধন করা কিছুদিন বন্ধ রাখে। বন্ধ রাখার আগপর্যন্ত ৭২ লাখের কিছু বেশি মানুষ নিবন্ধন করেছিলেন।

কিন্তু এখন নিবন্ধন দ্রুত বাড়ছে। গত শনিবার বিকেল পর্যন্ত নিবন্ধন করেছিলেন ৮৭ লাখ ৮৩ হাজার ৭১২ জন। আর গতকাল বিকেল পর্যন্ত নিবন্ধন করেছিলেন ৯০ লাখ ৫৩ হাজার ৩৮৪ জন। অর্থাৎ ২৪ ঘণ্টায় নিবন্ধন করেছেন ২ লাখ ৬৯ হাজার ৬৭২ জন।

সরকারি কর্মকর্তারা বলছেন, এক দিনে ৭ লাখ মানুষকে টিকা দেওয়ার সক্ষমতা তাঁদের আছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com