দুর্ঘটনা এড়াতে চালক ও যাত্রীদের যেসব বিষয় খেয়াল রাখতে হবে

দুর্ঘটনা এড়াতে চালক ও যাত্রীদের যেসব বিষয় খেয়াল রাখতে হবে

লোকালয় ডেস্ক : বাড়ির বাইরে বের হলে এই নিশ্চয়তা থাকে না আবার প্রিয়জনদের কাছে ফিরতে পারবো। বিশেষ করে আমাদের দুর্ঘটনাপ্রবণ যোগাযোগ ব্যবস্থা উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সকালে যে শিক্ষার্থী স্কুল-কলেজ কিংবা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্দেশে বের হয়, তাদের কেউ কেউ হয়তো বিকালে আর বাসায় ফিরতে পারে না।

এই সড়ক দুর্ঘটনার বেশিরভাগই ঘটে চালক ও আরোহীর অসচেতনতার জন্য। রাস্তায় বেপরোয়া গাড়ি চালানো, ওভারটেকিং, নিয়ম না মানার মতো অপরাধগুলো করে চালকরা। তাই জীবননাশ ঠেকাতে চালকদের আরো সচেতন হতে হবে।

আমাদের দেশের বেশিরভাগ চালকের কোনো প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ নেই। নেই কোনো নিয়ম-কানুনের বালাই। অল্প দক্ষ ও অদক্ষ চালকের জন্য রাস্তায় দুর্ঘটনাগুলো ঘটে থাকে। তাছাড়া চালকের প্রতিযোগিতার মনোভাব গাড়ি দুর্ঘটনার অন্যতম আরেকটি কারণ।

সম্প্রতি কয়েকটি দুর্ঘটনা চালকের প্রতিযোগিতার মনোভাব ও অন্যদের চেয়ে এগিয়ে যাওয়া এই বিষয়টিকে স্পষ্ট করেছে। মনে রাখবেন- এটা কোন রেসিং নয়, একটি দুর্ঘটনা সারা জীবনের কান্না।

আমাদের দেশের চালকরা সিট বেল্ট বাঁধেন না। দুর্ঘটনা ঘটার এটিও একটি অন্যতম কারণ। তাই অবশ্যই সিট বেল্ট বেঁধে গাড়ি চালাতে হবে চালকদের। গাড়ি চালানো অবস্থায় ফোন ব্যবহার থেকে বিরত থাকতে হবে। হটাৎ করে গাড়ির গতি বাড়ানো বা কমানো যাবে না, এতে করে দুর্ঘটনা ঘটার শঙ্কা বাড়ে।

নিরাপদে গন্তব্যে যেতে অবশ্যই মনযোগ সহকারে গাড়ি চালাতে হবে। রাস্তায় গাড়ি নিয়ে বের হলে রাস্তার অবস্থা বিশ্লেষণ জরুরি। যেমন রাস্তায় গাড়ির সংখ্যা, রাস্তার নিরাপত্তা, অবস্থা, লেনের পরিমাণ, প্রশস্ততা ইত্যাদি দেখা জরুরি। গাড়ির দুই পাশে লুকিং গ্লাস থাকে দুটি। এতে গাড়ির দুই পাশের অবস্থা দেখা সম্ভব হয়। তাই অবশ্যই গ্লাস দেখে নিরাপদে গাড়ি চালান।

টানা গাড়ি চালাতে গিয়ে চালকের ক্লান্তি আসে যা দূর করতে অনেক চালকেই ব্যবহার করেন মাদক। নেশাগ্রস্ত অবস্থায় দুর্ঘটনা ঘটে সবচেয়ে বেশি। তাই এই অবস্থায় গাড়ি চালানো থেকে বিরত থাকতে হবে। গাড়ির মালিকদেরও এই বিষয়টা বিবেচনা করে চালক নির্বাচন করা জরুরি। টানা গাড়ি চালাতে না দিয়ে প্রয়োজনে একাধিক চালক নেয়া যেতে পারে।

যাত্রীদেরও প্রয়োজন সচেতনতা। গাড়িতে উঠেই চালকের সাথে কথা বলা থেকে বিরত থাকুন। এতে চালকের মনযোগ নষ্ট হবে না। চলন্ত গাড়িতে ভাড়া বা অন্য কোনো কারণ নিয়ে কথা কাটাকাটি থেকেও বিরত থাকুন এতে চালক ঠান্ডা মাথায় গাড়ি চালাতে পারবেন।

চালক সিট বেল্ট বেঁধে গাড়ি চালাচ্ছেন কিনা দেখে নিতে পারেন, না লাগালে মনে করিয়ে দিন সিট বেল্ট লাগাতে। নিয়ম মেনে গাড়ি চালালে দুর্ঘটনা অনেক কমে যাবে। তাই চালক ও যাত্রী উভয়েরই সচেতনতা জীবন রক্ষা করতে পারে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

 
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com