ঠাকুরগাঁওয়ে আমন মৌসুমে ধান রোপনে ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষকরা

ঠাকুরগাঁওয়ে আমন মৌসুমে ধান রোপনে ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষকরা

মোঃ মজিবর রহমান শেখ : দেশের উত্তরের কৃষি নির্ভর জনপদ ঠাকুরগাঁও জেলা। বোরোর পর করোনার দুর্যোগেও আমন মৌসুমে ধন রোপন নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন ঠাকুরগাঁও জেলার কৃষকেরা। ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলা ও ঠাকুরগাঁও জেলার বিভিন্ন স্থানে গিয়ে দেখা যায়, কিছু স্থানে চারা গাছ তুলছেন তারা। আবার কিছু স্থানে গিয়ে দেখা যায়, চারা রোপন করতে শুরু করেছেন কৃষক। সবকিছু মিলিয়ে ঠাকুরগাঁও জেলার কৃষক ও কৃষিতে নিয়োজিত শ্রমিকেরা ব্যস্ত সময় পার করছেন আমন মৌসুমে ধন রোপণ নিয়ে। ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলার নারগুন, বেগুনবাড়ি, খোঁচাবাড়ি, সালন্দর, দানারহাট, বরুনাগাঁও , আউলিয়াপুর, ভুল্লি, গড়েয়া, আখানগর, শিবগঞ্জ, ঢোলোরহাট, ও রানিশংকৈল, পীরগঞ্জ, বালিয়াডাঙ্গী , হরিপুর উপজেলা সহ বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, আমন মৌসুমে চারা উঠানো ও রোপন করার দৃশ্য। এতে দল বেঁধে শ্রমিকেরা কোথাও আমনের চারা তুলছেন, আবার কোথায় চারা রোপন করছেন। এদের মধ্যে নারী শ্রমিকদের চারা তুলে রোপনের দৃশ্য চোখে পড়ে বেশ কয়েক জায়গায়। জনপ্রিয় বেশ কয়েকটি জাতের ধান আবাদ করা হবে বলে জানান কৃষকেরা। ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলার নারগুন এলাকার কৃষক আলহাজ্ব মোমিনুল ইসলাম, সালন্দর মোজাতিপাড়া গ্রামের আবুল হোসেন কৃষক জানান, প্রত্যেক বছরের মত এ বছর তিনি ৩ একর (৩শ শতক) জমিতে আমন লাগানোর প্রস্তুতি নিয়েছেন। ইতিমধ্যে চারা রোপনের জন্য প্রস্তুত হয়েছে। যে কোন দিন চারা রোপনের জন্য শ্রমিক নিয়োগ করবেন বলে জানান তিনি। ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলার শীবগঞ্জ এলাকার কৃষক মকছেদুল জানান, তিনি এ বছর আড়াই একর (২৫০ শতক) জমিতে আমন ধান লাগানোর প্রস্তুতি নিয়েছেন। ইতিমধ্যে বিভিন্ন এলাকা থেকে চারা জোগাড় করেছেন এবং তা রোপনও শুরু করেছেন। গত বছর শুরুর দিকে দাম কম পাওয়া গেলেও এ বছর ভাল দাম পাওয়ার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি। ঠাকুরগাঁও জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ – সহকারী কৃষি কর্মকর্তা রাশেল ইসলাম, উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, এ বছর ঠাকুরগাঁও জেলায় ১ লাখ ৩৭ হাজার ২৫ হেক্টর জমিতে আমন চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। এর মধ্যে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয় ৩ লাখ ৯৭ হাজার ৪৫০ মেট্রিক টন।
ইতিমধ্যে কৃষকেরা চারা তুলে তা রোপনের কাজ শুরু হয়েছে জানিয়ে এ যাবত জেলায় মোট ২৬০ হেক্টির জমিতে চারা রোপন করা হয়েছে বলে জানান তিনি।
ঠাকুরগাঁও জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ আবু হোসেন জানান, ঠাকুরগাঁও জেলা অন্যান্য ফসলের ন্যয় ধানের জন্যও বিখ্যাত। প্রচুর পরিমানে ধান এ জেলায় উৎপাদন হয়। প্রত্যেক বছর আমন মৌসুমে কৃষকদের যাবতীয় পরামর্শ ও সেবা ঠাকুরগাঁও জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে প্রদান করা হয়। এ বছরও দেওয়া হয়েছে। যদিও করোনা পরিস্থিতিতে বাজারের কিছুটা সমস্যা রয়েছে পরিস্থিতি একটু ভাল হয়ে লক্ষ্যমাত্রার অতিরিক্ত ধান উৎপাদন হবে এবং কৃষকেরা এ বছরও ধানের ন্যায্য মূল্য পাবেন বলে তিনি প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com