টাকার অভাবে প্রবাসি সোহাগের লাশ পড়ে আছে মালদ্বীপে

টাকার অভাবে প্রবাসি সোহাগের লাশ পড়ে আছে মালদ্বীপে

টাকার অভাবে প্রবাসি সোহাগের লাশ পড়ে আছে মালদ্বীপে
টাকার অভাবে প্রবাসি সোহাগের লাশ পড়ে আছে মালদ্বীপে

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ মালদ্বীপ পর্যটক শহরের একটি রিসোর্টে কাজ করতেন মো. সোহাগ মিয়া (২৪) নামের এক যুবক। তিন বছর পূর্বে এইসএসসি পাশ করে যান বিদেশের মাটিতে। সোহাগ টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার আজগানা ইউনিয়নের কুড়িপাড়া গ্রামের শাহাজুদ্দিনের ছেলে।

জানা গেছে, হতদরিদ্র পরিবারে জন্ম নেওয়া সোহাগ ভাগ্য বদলাতে পাড়ি জমান মালদ্বীপ। কিন্তু তেমন সুযোগ-সুবিদা বিদেশের মাটিতে করতে পারেননি। হঠাৎ গত (২৩ জানুয়ারি) সোহাগের রুমে মৃত অবস্থায় দেখতে পায় প্রবাসিরা বন্ধুরা। মালদ্বীপের ডাক্তার বলেছেন স্টোক জনিত কারনে মারা গেছেন তিনি।

সোহাগের চাচা আলম হোসেন জানান, সোহাগের লাশ বাংলাদেশে আনতে পুহাতে হচ্ছে নানা জটিলতা। সোহাগের কাগজ পাতির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার ফলে মালদ্বীপে অবৈধ হিসেবে কাজ করতেন। অবৈধ হিসেবে ছিলো বিধায় মিলছেনা সরকারের সহযোগিতা। ব্যক্তি উদ্যোগে তাঁর লাশটি দেশে আনতে যে টাকার প্রয়োজন তা দেওয়ার সামর্থ্য নেই হতদরিদ্র পরিবারের, সরকার যদি নিজ খরচে সোহাগের লাশ বাংলাদেশে আনার ব্যবস্থা না করে তাহলে সোহাগের লাশ দেশে আনা সম্ভব হবে না।

সোহাগের বাবা শাহাজুদ্দিন কান্নাস্বরে বলেন, আমার ছেলে দেশে আসার জন্য ৫০ হাজার টাকা চাইছিলো। বাড়িতে ঘরের কাজ শুরু করায় ছিলো না টাকা। তাই ছেলে আমার অভিমান করে বলেছিলো এক জায়গায় কাজ নিছি কিছু টাকা হইলেই দেশে আসবো। ছেলের মৃত্যুর খবরে শোকে পাথর তার মা। কারও সাথে কথাও বলছেন না। ঘুম খাওয়া সব যেন হারাম।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com