ছোট আমলে বড় প্রাপ্তি

ছোট আমলে বড় প্রাপ্তি

http://lokaloy24.com
http://lokaloy24.com

কোরআনে কারিমে ইরশাদ হয়েছে, ‘আর মানুষের আমলনামা উপস্থিত করা হবে। তাতে যা লিপিবদ্ধ আছে, তার কারণে তুমি অপরাধীদের ভীতসন্ত্রস্ত দেখবে। তারা বলবে, হায় আফসোস! এ কেমন আমলনামা! এটা তো ছোট-বড় কোনো কিছুই বাদ দেয়নি, সবই এর মধ্যে আছে। তারা তাদের কৃতকর্ম সামনে উপস্থিত পাবে। আপনার রব কারও ওপর জুলুম করেন না।’ সুরা কাহফ : ৪৯

বর্ণিত আয়াতের তাফসিরে বলা হয়েছে, কিয়ামতের দিন সব মানুষের আমলনামা উপস্থিত করা হবে। এটা দেখে ইমানদাররা আল্লাহর শোকরিয়া আদায় করবে; কিন্তু অপরাধীরা আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়বে। তারা আফসোস করে বলতে থাকবে, এটা কেমন আমলনামা, যেখানে জীবনের ছোট-বড় সব কিছু লিপিবদ্ধ করে রাখা হয়েছে? সেই আফসোস তখন কোনো কাজে আসবে না। আমলনামা অনুযায়ী সেখানে প্রত্যেককে তার প্রাপ্য দেওয়া হবে। কারও ওপর জুলুম করা হবে না।

প্রত্যেক মানুষের কাজকর্মের সব তথ্য নির্দিষ্ট গ্রন্থে লেখা হয়। এটাকে আমলনামা বলা হয়। মানুষ যে জায়গায় যে অবস্থায় থাকে, তার আমলনামা তার সঙ্গে থাকে। তার সব কাজকর্ম লিপিবদ্ধ হতে থাকে। মৃত্যু পর্যন্ত এ ধারা চলতে থাকে। মৃত্যুর পর তা বন্ধ করে রেখে দেওয়া হয়। কিয়ামতের দিন এ আমলনামা প্রত্যেকের হাতে দিয়ে দেওয়া হবে, যাতে সে নিজেই নিজের ফয়সালা করে নিতে পারে, যে সে পুরস্কারের যোগ্য, না আজাবের উপযুক্ত।

অভিজ্ঞ ইসলামি স্কলারদের মতে, দৈনিক ফরজ আমলের সঙ্গে সঙ্গে ছোট ছোট কিছু আমল নিত্যদিনের রুটিন বানানো দরকার। ইনশাআল্লাহ, এসব আমল একদিন বিশালাকারে মানুষের সামনে পেশ করা হবে। কোনো আমল বাদ দেওয়া হবে না। কিয়ামতের ময়দানে ফরজ ওয়াজিবের পাশাপাশি আদায় করা এসব ছোট ছোট পূণ্যের কাজ মানুষের ব্যাপক উপকারে আসবে, দোজখের আগুন আর পরকালের শাস্তির সামনে প্রতিবন্ধক হয়ে দাঁড়াবে। এসব আমল মানুষের শুভাকাক্সক্ষী হিসেবে হাজির হবে। ওজনের পাল্লাকে ভারী করতে বিশাল ভূমিকা রাখবে।

যদি দৈনিক ছোট পাঁচটি পূণ্যময় কাজ করা হয়, তাহলে মাস শেষে তার ফলাফল দাঁড়াবে একশত পঞ্চাশ, বছরে আঠারো শ’। এভাবে হিসাব করতে করতে যদি আমরা ৬০ বছর জীবন পাই, তাহলে এই ৬০ বছরে আমাদের কত নেকি হবে তা সহজেই অনুমানযোগ্য। মনে করুন, আপনি প্রতিদিন এক পাতা কোরআন তেলাওয়াতকে নিত্যদিনের রুটিন বানিয়েছিলেন। এক পাতায় এক হাজার হরফ রয়েছে। প্রতি হরফে দশ নেকি করে দিনে দশ হাজার নেকি। এবার মাসের হিসাব করে দেখুন, ফলাফল কী হয়! এভাবে ৬০ বছরের জীবনে অকল্পনীয় পাহাড়সম নেকির অধিকারী হবেন। কিয়ামতের ময়দানে এই পাহাড়সম নেকি আপনার পক্ষে আল্লাহর কাছে সুপারিশ করবে।

ওপরে বর্ণিত হিসাবে এক হরফে দশ নেকি ধরা হয়েছে। কিন্তু আল্লাহতায়ালা আপনার নিয়ত দেখে দিগুণ নেকিও দিতে পারেন। এ প্রসঙ্গে হাদিসে ইরশাদ হয়েছে, হজরত আবদুল্লাহ ইবনে মাসঊদ (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, হজরত রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, আল্লাহতায়ালার কিতাবের (কোরআন) একটি হরফ যে ব্যক্তি পাঠ করবে, তার জন্য এর সওয়াব আছে। আর সওয়াব হয় তার দশ গুণ হিসেবে। আমি বলি না যে, ‘আলিফ-লাম-মীম’ একটি হরফ, বরং আলিফ একটি হরফ, লাম একটি হরফ এবং মীম একটি হরফ।-তিরমিজি : ২৯১০

কোরআনে কারিমে ইরশাদ হয়েছে, ‘অতঃপর কেউ অণু পরিমাণ সৎকর্ম করলে তা দেখতে পাবে।’ সুরা জিলজাল : ৭

তাই ছোট ছোট আমলকে অবহেলা না করে নিত্যদিনের রুটিন বানানো দরকার। একসময় তা বিশাল আকারে আমাদের সামনে উপস্থাপিত করা হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com