চুনারুঘাটে বোরো ধানের বাম্পার ফলন হলেও ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত কৃষক

চুনারুঘাটে বোরো ধানের বাম্পার ফলন হলেও ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত কৃষক

চুনারুঘাটে বোরো ধানের বাম্পার ফলন হলেও ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত কৃষক
চুনারুঘাটে বোরো ধানের বাম্পার ফলন হলেও ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত কৃষক

ফারুক মিয়া, চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) থেকে: হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার বোরো ধান চাষে লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম করেছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। উৎফুল্লসিত কৃষকরা এখন ধান কাঁটার জন্য মাঠে নেমে পড়েছেন। সারা মাঠ জুড়ে যেন কৃষকদের প্রাণের মেলা। চুনারুঘাট উপজেলা জুড়ে শুধু সারি সারি বোরো ধান ক্ষেত। চুনারুঘাট উপজেলা কৃষি অফিসার জালাল উদ্দিন সরকার জানান, আমন ধানের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৩ হাজার হেক্টর, তবে এ লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে গেছে বলে তিনি জানান। স্থানীয় কৃষকরা জানান, উপজেলা ও এলাকার নিম্ন ভূমিতে আমন ধান কাঁটার পর বন্যার সহিষ্ণু গোডা ও আশমিতা, আঠাইশ, উনত্রিশ, প াশ, দেবদাস দেশী জাতের ধান বীজ বুনা হয়েছিল। প্রতি কৃষকদের খরচ হয় প্রায় দেড় হাজার টাকা। আগাছা দমন ছাড়া তেমন কোন খরচ নেই। নেই কোন পোঁকার উপদ্রব। প্রাকৃতিকভাবে এ ধান গাছ বেড়ে ওঠে। বোরো ধান ভাল ফলন হওয়ায় চুনারুঘাট উপজেলা মিরাশী ইউনিয়নের গাতাবলা, কৃষ্ণপুর, সাত্তালিয়া, পড়াঝার, আইতন, রানীগাঁও, আব্দাছালিয়া, পাকুড়িয়া সহ বিভিন্ন এলাকায় বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে শুধু বোরো ধানের ক্ষেত লক্ষ্য করা যায়। এ বছর ধানের ফলন বেশি হওয়ায় কৃষকদের মুখে আনন্দ। ধান কাটা ও মাড়াই করার জন্য বেকার পুরুষ-মহিলা শ্রমিক হিসাবে কাজ করছেন। নতুন ধান ঘরে তুলতে ধানের গোলা তৈরি করছেন কৃষকরা। ঘরে ঘরে চলছে ধান তোলার উৎসব। উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা জানান, এ বছর আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় পল্লী এলাকার নিম্ন জমিতে বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। এতে শত শত কৃষক আনন্দিত হয়ে উঠেছেন। কৃষকরা হলেন- উপজেলার মিরাশী ইউনিয়নের ফারুক মিয়া, দিলবর আলী, মেম্বার সুরুজ আলী সহ আরো অনেক কৃষকই এ ফলনে আনন্দিত। কৃষক আকবর হোসেন জানান, বোরো ধানের খরচ আর ধানের দরে ব্যবধান থাকায় মুনাফা অর্জন হয় না। তাই তিনি নগদ টাকা দিয়ে ধান কিনে লাভবান হবেন বলে দাবি করেন। বর্তমানে কৃষকরা প্রতি বোরো ধানের মূল্য পাচ্ছে ৪শ ৫০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৫ শ’ টাকা। কিন্তু কৃষকরা ০৬ মাস মাথার ঘাম পায়ে ফেলে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ফসল রোপন করেছেন। পারিশ্রমিক ও মজুরী হিসেবে মুনাফা অর্জন হবে না বর্তমান ধানের বাজার মূল্যে এমনটাই মনে করছেন তারা। তাই ধানের আড়ৎধারদের সিন্ডিকেট ভেঙ্গে ধানের ন্যায্য মূল্য নির্ধারণের জন্য সরকারের নিকট দাবি জানিয়েছেন কৃষকরা। কৃষি কর্মকর্তা আরো জানান, বর্তমান সরকার কৃষি বান্ধব সরকার। কৃষকের উন্নয়নে সরকার যুগোপযোগী পদক্ষেপ নিয়েছে। কিন্তু কিছু মধ্যস্বত্বভোগীরা নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য ধানের মূল্য উঠানামা করাচ্ছে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কৃষক সমাজ প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com