সংবাদ শিরোনাম :
হবিগঞ্জে আ’লীগের সভাপতি জাহির, সম্পাদক আলমগীর মিস ওয়ার্ল্ডে বাংলাদেশ ও ভারতের দুই সুন্দরীর লড়াই নাগরিকত্ব বিল ভারতের ধর্মনিরপেক্ষ অবস্থানকে দুর্বল করবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী দেশীয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে বিনামূল্যে কুষ্ঠরোগের ওষুধ সরবরাহের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর টাকা দিয়ে প্রেমিক কিনছে চীনা মেয়েরা কাপড় কেচে রাতারাতি বিখ্যাত শিম্পাজি (ভিডিও) রোহিঙ্গা গণহত্যার উল্লেখই করলেন না সু চি বিচারপতির ছেলের বিরুদ্ধে সুমনের রিট শুনবেন না হাইকোর্ট সংখ্যালঘু নির্যাতনের রেকর্ড করেছিল বিএনপি: হবিগঞ্জে সম্মেলনে সেতুমন্ত্রী সরকারি নিষেধাজ্ঞা ভেঙে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাহাড় কাটার ধুম!
কড়া নিরাপত্তায় রাজশাহীর আদালতে সাঈদী

কড়া নিরাপত্তায় রাজশাহীর আদালতে সাঈদী

কড়া নিরাপত্তায় রাজশাহীর আদালতে সাঈদী
কড়া নিরাপত্তায় রাজশাহীর আদালতে সাঈদী

রাজশাহী- একাত্তরের মানবতাবিরোধী কারাদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে রাজশাহী জেলা জজ আদালতে নেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৫ জুলাই) বেলা সোয়া ১১টার দিকে অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক এনায়েত কবীর সরকারের আদালতে তাকে হাজির করা হয়।

এদিকে, জামায়াত নেতা সাঈদীকে আদালতে আনা নিয়ে রাজশাহী কারাগার থেকে আদালত প্রাঙ্গণ পর্যন্ত রাস্তায় ব্যাপক নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। সকাল থেকে আদালত চত্বরের কয়েকটি স্থানে তল্লাশি চৌকি বসিয়েছে পুলিশ। তল্লাশি ছাড়া কাউকে আদালতের ভেতরে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না।

জানা যায়, ২০১০ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি গভীর রাতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগ-ছাত্রশিবির সংঘর্ষ হয়। রাতভর চলা সংঘর্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ মখদুম হলে ছাত্রলীগ কর্মী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের শিক্ষার্থী ফারুক হোসেনকে হাত ও পায়ের রগ কেটে হত্যা করা হয়। হত্যার পরে ভোরে তার মরদেহ টেনেহিঁচড়ে হলের পাশের ম্যানহোলে ফেলে দেওয়া হয়।

ঘটনার পরদিন ৯ ফেব্রুয়ারি রাবি ছাত্রলীগের তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক মাজেদুল ইসলাম অপু বাদী হয়ে রাজশাহী নগরীর মতিহার থানায় মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় জামায়াতের তৎকালীন কেন্দ্রীয় আমির মতিউর রহমান নিজামী, সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ, নায়েবে আমির দেলোয়ার হোসেন সাঈদীসহ ১৫০ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত অসংখ্য শিবির নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়।

তদন্ত শেষে ২০১২ সালের জুলাই মাসে ১০৭ জনকে আসামি করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে তদন্ত কর্মকর্তা।

রাজশাহীর অতিরিক্ত মহানগর দায়রা ও জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি শিরাজি শওকত সালেহীন জানান, ওই মামলায় ৬০ জন আসামি জামিনে রয়েছেন। কয়েকজন মারা গেছেন। বাকিরা পলাতক। মামলায় সাঈদীও জামিনে রয়েছেন। তবে অভিযোগ গঠনের সময় আসামিদের আদালতে হাজির করতে হয়। সেই জন্যই ঢাকা থেকে সাঈদীকে রাজশাহতে আনা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আজ অভিযোগ গঠন করা হবে।

রাষ্ট্রপক্ষে এ মামলা পরিচালনা করছেন ওই আদালতের এপিপি শিরাজী শওকত সালেহীন। আর আসামিপক্ষে মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে একটি প্যানেল এ মামলা লড়ছেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com