সংবাদ শিরোনাম :
শুল্ক ফাঁকির শতাধিক বিলাসবহুল গাড়ি এখন সিলেটে! দুবাইয়ে চাকরি দেয়ার কথা বলে টাকা আত্মসাত ॥ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা অবশেষে আবর্জনামুক্ত হচ্ছে হবিগঞ্জ শহরে আধুনিক স্টেডিয়ামের পাশ হবিগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে জামায়াত নেতাকর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা অপরাধ কর্মকাণ্ড রোধে সতর্ক পুলিশ শাহজীবাজার মাজারে প্রশাসনের আদেশ অমান্য করে কাফেলার আয়োজন সংবাদ প্রকাশের পর গার্নিং পার্কে মিনি পতিতালয়ের সন্ধান ডিবির অভিযানে ৫ কলগার্লসহ ৩ খদ্দর আটক কোরেশনগরে হোটেল যুবরাজ থেকে লাশ উদ্ধার ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে ফাইনালে আর্জেন্টিনা ছেলের বিয়ের দাওয়াতে বের হয়ে বাড়ি ফেরা হলো না মায়ের
এখনও সঠিক মূল্যায়ন পাইনি: মিশা

এখনও সঠিক মূল্যায়ন পাইনি: মিশা

             মিশা সওদাগর (ছবি: সংগৃহীত)

তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে চলচ্চিত্রে অভিনয় করছেন মিশা সওদাগর। চলচ্চিত্রে খলচরিত্রের অপ্রতিদ্বন্দ্বী অভিনেতা তিনি। বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারি) গুণী এই অভিনেতার জন্মদিন।

এদিন দুপুরে আমাদের সঙ্গে কথা বলেন মিশা সওদাগর।

জন্মদিন কেমন কাটছে?
মিশা:
খুব সাধারণ। কোনো আয়োজন রাখিনি। সারাদিন বেশকিছু টিভি চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দিচ্ছি। এছাড়া বুধবার রাতে আমার ছেলে কেক নিয়ে এসেছিল। তার মন রক্ষার্থে শুধু কেক কাটলাম। যদিও আমি কখনও জন্মদিনে কেক কাটার পক্ষপাতী না। কারণ আমাদের দেশে বহু মানুষ আছেন যাদের জন্মদিনে কেক কাটার বা কোনো আয়োজন রাখার সামর্থ্য নাই। তাহলে আমি কেন কেক কেটে বিলাসিতা করবো?

ছোটবেলার জন্মদিন কিভাবে উদযাপন করতেন?
মিশা:
প্রতি জন্মদিনে বাবা-মা বাসায় হুজুর ডেকে মিলাদ পড়াতেন। আত্মীয়-স্বজনরা বাসায় আসতেন। আমার মঙ্গল কামনা করে দোয়া করতেন। কখনও কেক কেটে জন্মদিন উদযাপন করিনি। বাবা-মা এখন নেই। তবে প্রতিবারের মতো আজ তাদের কবর জেয়ারত করতে যাবো। তাদের জন্য আমি আল্লাহর কাছে দোয়া চাইবো।

প্রায় ৮০০ চলচ্চিত্রের অভিনেতা আপনি। বিষয়টি কিভাবে দেখেন?
মিশা:
আমি কখনও সংখ্যা হিসাব করি না। দর্শকের ভালোবাসা ও সমর্থনে নিয়ে কাজ করে যাই। আমি নিজেও অবাক হয়ে যাই এতো ছবিতে কিভাবে অভিনয় করে ফেললাম। দর্শক না চাইলে এতো ছবিতে কাজ করতে পারতাম না। সবাই আল্লাহর রহমত, বাবা-মার দোয়া ও দর্শকের ভালোবাসার কারণে সম্ভব হয়েছে।

দীর্ঘ ক্যারিয়ারে আপনার কী কোনো অপ্রাপ্তি আছে?
মিশা:
অনেককিছু আছে। এতদিন ধরে চলচ্চিত্র কাজ করছি কিন্তু আমার কাছে মনে হচ্ছে এখনও সঠিক মূল্যায়ন পাইনি। শুধু আমি না। আমাদের যারা সিনিয়র ছিলেন বা যারা আছেন, অথবা যারা এখন কাজ করছেন। আমার মতে, কেউ সঠিক মূল্যায়ন পায়নি, পাচ্ছে না। আমরা বড় ধরনের কোনো সুযোগ-সুবিধাও পাই না-এটাই অপ্রাপ্তি।

কত বছর বাঁচতে চান?
মিশা:
অনেকদিন বাঁচতে চাই। মানুষের ভালোবাসা নিয়ে সুস্থ শরীরে বহুদিন পৃথিবীর বুকে নিজেকে মেলে ধরতে চাই।

আজকের এই অবস্থানে আসার পেছনে আপনাকে সবচেয়ে বেশি সাপোর্ট দিয়েছেন কে?
মিশা:
আমার

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com