এক সপ্তাহের ব্যবধানে ফুলকপির দরপতন, হতাশ চাষীরা

এক সপ্তাহের ব্যবধানে ফুলকপির দরপতন, হতাশ চাষীরা

এক সপ্তাহের ব্যবধানে ফুলকপির দরপতন, হতাশ চাষীরা
এক সপ্তাহের ব্যবধানে ফুলকপির দরপতন, হতাশ চাষীরা

সাগর হোসেন ফিরোজ, হরিপুর (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি: কয়েকদিন আগেই পাইকারি বাজারে ফুলকপির প্রতি কেজি ২৫-৩০ টাকা ছিল। এ বাজার দরের সংবাদ পুরনো। এখন ফুলকপির মূল্য প্রতিকেজি ৬ থেকে ৮ টাকা। দিন যত চলে, বাজারে তত দাম কমে ফুলকপির। এমন দরপতনে কৃষকের মাথায় হাত।
জানা যায়, এক সপ্তাহ আগে পাইকারি বাজারে ফলকপির দাম ছিল প্রতি মণ এক হাজার থেকে ১২শ’ টাকা। হঠাৎই শনিবার (৩ নভেম্বর) থেকে সেই ফুলকপি ৩ থেকে ৩৫০ টাকা মণ দরে বিক্রি হচ্ছে।
ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলায় আগাম ফুলকপি চাষ করেন কৃষকেরা। দামও ভাল ছিল। অনেকে চাষিই বলেছিল- ফুলকপির এমন আকাশছোঁয়া দাম আগে কখনো দেখেনি। কিন্ত সপ্তাহ ব্যবধানে দাম পাতালে ঠেকেছে।
শনিবার (৩ নভেম্বর) সকালে উপজেলার কাঠালডাঙ্গী বাজার এলাকায় গিয়ে দেখা যায় ফুলকপির বাজারের এমন চিত্র।
সাইরুল নামে এক ফুলকপি চাষী বলেন, তিনি ৩৩ শতাংশ জমিতে ফুলকপি চাষ করেন। এতে খরচ হয়েছে ৯ হাজার টাকা। বিক্রি করেছেন ২৬ হাজার টাকা। তবে এখন আর লাভের মুখ দেখছে না চাষীরা।
উপজেলা কৃষি সম্পসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, উপজেলায় আগাম ফুলকপি চাষ করা হয়েছে ১শ ৫০ হেক্টর জমিতে।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নইমুল হুদা সরকার জানান, সরকারের কৃষি পরিবেশ বান্ধবনীতি ও সার-বীজের সহজলভ্যতার কারণেই হরিপুরে উপজেলায় ফুলকপির বাম্পার ফলন হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, দেশের বিভিন্ন এলাকায় ফুলকপি এখন আগাম চাষ করা হচ্ছে। তাই এই এলাকায় আগাম ফুলকপির বাজার কমে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

 
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com