সংবাদ শিরোনাম :
চুনারুঘাটে বিজিবি’র ৬ জোয়ানের নামে আদালতে মামলা ॥ সিআইডি মাঠে। বানিয়াচংয়ে চুরি বৃদ্ধি, গভীর রাতে দোকান বন্ধের মাইকিং। বিদ্যুৎস্পৃষ্টে পুলিশ লাইন থেকে পড়ে আনসার সদস্যের মৃত্যু নারীদের সাইবার সহায়তা দেবেন নারী পুলিশরাই। তোমার ব্যবহারের ওপর নির্ভর করে পুরো বাহিনীর সম্মান আইজিপি করোনা ভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে ১৯ দিন পর ঢাকা থেকে হবিগঞ্জে ফিরেছেন সংসদ সদস্য। চুনারুঘাটে ৯৯৯ এ ফোন দিয়ে বাচঁলো এক নারী! থানায় মামলা ডায়েরি না করায় শংকিত পরিবার। সংসদে বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী। সিলেটে ফের ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত, রেল যোগাযোগ বন্ধ। চুনারুঘাটে অভিনব কায়দায় গাঁজা পাচারকালে আটক দুই।
ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ (আইজিপি), বাংলাদেশ ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার) এর দেয়া গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য।

ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ (আইজিপি), বাংলাদেশ ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার) এর দেয়া গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য।

ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ (আইজিপি), বাংলাদেশ ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার) এর দেয়া গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য।

অনলাইন ডেস্ক 🗣1. বিনা ওয়ারেন্ট অথবা নোটিশ না দিয়ে পুলিশ আপনাকে গ্রেফতার করতে পারে না। (CrPC act 54 ব্যতীত)

🗣2. গ্রেফতারের সময় আপনাকে গ্রেফতারের কারণ, গ্রেফতারকারী অফিসারের নাম, গ্রেফতারের সময় ও স্থান সম্পর্কিত একটি মেমো পুলিশ আপনাকে বা আপনার বাড়ির লোককে দিতে বাধ্য। এই জিনিসটি অবশ্যই চেয়ে নেবেন। মামলার ক্ষেত্রে এটির গুরুত্ব অপরিসীম।

🗣3. গ্রেফতার করার 24 ঘন্টার মধ্যে পুলিশ আপনাকে ম্যাজিষ্ট্রেটের সামনে হাজির করতে বাধ্য এবং ম্যাজিষ্ট্রেটের অনুমতি ছাড়া আর একদিনও আপনাকে অতিরিক্ত আটকে রাখতে পারে না। কোর্ট ছুটি থাকলে সেক্ষেত্রে ম্যাজিষ্ট্রেটের আবাসিক এ আপনাকে হাজির করাতে হবে।

🗣4. মহিলা পুলিশ ছাড়া কোনওভাবেই কোনও মহিলাকে গ্রেফতার বা তল্লাশী চালানো যায় না।

🗣5. আইন অনুযায়ী পুলিশ লক আপে আপনাকে কোনওপ্রকার শারীরিক বা মানসিক অত্যাচার করতে পারে না। এমনকি চড় মারতেও পারে না।

এবার জেনে নিন কীভাবে পুলিশ আপনাকে হয়রানি করতে পারে ও এক্ষেত্রে কী করবেন-

🗣1. সাধারণ ভাবে সরকারবিরোধী, শাসক দল বিরোধী কোনও পোষ্টের জন্য পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারে না। কারণ বাক স্বাধীনতার অধিকার আমাদের সংবিধানে স্বীকৃত। কিন্তু পুলিশ মামলা দায়ের করে অন্য ধারায়। আপনি পুলিশী হয়রানির শিকার হতে পারেন। যদি আপনি আপনার ফেসবুক পোস্টে-

ক) অশ্লীল কোনো শব্দ ব্যবহার করেন

খ) ভিত্তিহীন গুরুতর অভিযোগ করেন

গ) চরিত্রহনন করেন।

এই সমস্ত বিষয়গুলি তাই এড়িয়ে চলুন। স্বেচ্ছায় পুলিশের হাতে অস্ত্র তুলে দেবেন না।

🗣2. স্থানীয় রেপুটেড কোনো ক্রিমিন্যাল ল’ইয়ার, স্থানীয় মানবাধিকার আন্দোলনকর্মী এবং মিডিয়ার ফোন নাম্বার হাতের কাছে রাখুন।

🗣3. কোনও ব্যক্তি পুলিশি হয়রানির শিকার হচ্ছেন জানতে পারা মাত্র তার পাশে দাঁড়ান। সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করে খবরটি ছড়িয়ে দিন।

এবিষয়ে বিজ্ঞ আইনজীবিদের আরও পরামর্শ সহযোগিতা নেয়া যেতে পারে। গণ সচেতনতা তৈরিতে সহায়তা করুন।

মনে রাখবেন, আপনার সচেতনতাই পারে আপনাকে পুলিশী হয়রানি থেকে নিরাপদ রাখতে

 নিজে জানুন এবং অন্যকে জানাতে সহযোগিতা করুন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com