‘আমেরিকা নয়, আমাদের শত্রু ইরানের ভেতরেই’

‘আমেরিকা নয়, আমাদের শত্রু ইরানের ভেতরেই’

‘আমেরিকা নয়, আমাদের শত্রু ইরানের ভেতরেই’
‘আমেরিকা নয়, আমাদের শত্রু ইরানের ভেতরেই’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- ইউক্রেন এয়ারলাইন্সের একটি যাত্রীবাহী বিমান ভুল করে ভূপাতিত করার স্বীকারোক্তি দেওয়ার পর ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনির পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে তেহরানে।

ইরানি সেনাবাহিনী স্বীকারোক্তি দেওয়ার পর তেহরানের রাস্তায় নেমে আসেন বিক্ষোভকারীরা। শনিবার আমির কবির বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভকারীদের ‘সর্বাধিনায়কের পদত্যাগ, পদত্যাগ’ স্লোগান দিতে দেখা গেছে।

“নেতারা বলছেন, আমেরিকা আমাদের শত্রু। এটি মিথ্যা কথা। আমাদের শত্রু দেশের ভেতরেই রয়েছে,” বলে সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ইরানের বিক্ষোভকারীরা।

ইরানের সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, গতকাল (১২ জানুয়ারি) তেহরানের বাসিন্দারা রয়টার্সকে বলেছেন, সব পুলিশকে রাস্তায় নামিয়ে আনা হয়েছে। ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনিকে লক্ষ্য করে ‘স্বৈরাচার নিপাত যাক’ স্লোগানও দিতে দেখা গেছে অনেককে।

ইরানের আধা-সরকারি আইএলএনএ বার্তা সংস্থা জানিয়েছে, বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে প্রায় ৩ হাজার পুলিশ রাস্তায় নেমেছে। বিক্ষোভকারীদের লাঠিপেটা করতে ও তাদের ওপর কাঁদানে গ্যাসের সেল ছোড়ার দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা গেছে।

ইউক্রেনের যাত্রীবাহী উড়োজাহাজ ভূপাতিত করার পর মিথ্যা বলায় ইরানিদের সব ক্ষোভ গিয়ে পড়েছে দেশটির ক্ষমতাসীনদের ওপর।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত ভিডিওচিত্রে দেখা যায়, তেহরানের আজাদি স্কয়ারে দাঙ্গা-পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাসের সেল ছুড়ছে।

নিরাপত্তা রক্ষীরা তেহরানের আজাদি স্কয়ারের কাছে শরিফ বিশ্ববিদ্যালয়, ইনকিলাব স্কয়ারের কাছে তেহরান বিশ্ববিদ্যালয় এবং ফেরদৌসি স্কয়ারে অবস্থান করছে। জলকামান ও কালো গাড়ি নিয়ে দাঙ্গা পুলিশ অবস্থান করছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত একটি ভিডিওচিত্রে দেখা যায়, বিক্ষোভকারীরা ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনির পদত্যাগ ও উড়োজাহাজ ধ্বংসে জড়িতদের শাস্তির দাবিতে স্লোগান দিচ্ছেন।

অপর একটি ভিডিওতে দেখা যায়, বিক্ষোভকারীরা স্লোগান দিয়ে বলছেন, “খামেনির যদি লজ্জা থাকে তাহলে দেশ ছাড়ুক।” কাঁদানে গ্যাস থেকে বাঁচার জন্যে লোকজন ছুটে পালাচ্ছেন- এমন দৃশ্যও দেখা যায় ভিডিওগুলোতে।

ইরানের মধ্যপন্থি দৈনিক ‘ইতেমাদ’ ব্যানার শিরোনাম দিয়ে লিখেছে, “ক্ষমা চান এবং পদত্যাগ করুন।” চলমান সঙ্কট নিরসনে ব্যর্থদের দ্রুত ক্ষমতা ছাড়ার দাবিটিকে ‘গণদাবি’ হিসেবেও উল্লেখ করা হয়েছে গণমাধ্যমটিতে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com