আমি গর্ভবতি, স্ত্রীর মর্যাদা না দিলে মরণ ছাড়া উপায় নেই

আমি গর্ভবতি, স্ত্রীর মর্যাদা না দিলে মরণ ছাড়া উপায় নেই

‘আমি গর্ভবতি, স্ত্রীর মর্যাদা না দিলে মরণ ছাড়া উপায় নেই’

 

মোঃ সনজব আলীঃ  হবিগঞ্জের মাধবপুরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ, গর্ভপাত ও শাররীক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। বিয়ের দাবিতে ৫ দিন ধরে ওই কলেজ ছাত্রী প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান করছেন। মাধবপুর উপজেলার শাহজাহানপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।

 

জানা গেছে, উপজেলার শাহজাহানপুর গ্রামের মহব্বত খানের ছেলে রাকিব খান একই গ্রামের কলেজ পড়ুয়া এক ছাত্রীর সাথে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেন এবং একাধিকবার শারীরিকভাবে মিলিত হন। গত দেড় মাস আগে রাকিব খান ওই কলেজছাত্রীকে তার (শাহজাহানপুরস্থ) বাড়িতে নিয়ে তুলেন। ওই সময় রাকিব খানের পিতা মহব্বত খান ওই ছেলের প্রেমিকাকে তাড়িয়ে দেন। প্রস্তাব দেন- সামাজিক অনুষ্ঠান করে পুত্রবধূর মর্যাদা দিয়ে ওই কলেজছাত্রীকে ঘরে তুলে নেবেন। কিন্তু পরবর্তীতে সেটি না করায় ওই কলেজ ছাত্রী গত ৫ দিন আগে রাকিবের বাড়িতে উঠে স্ত্রীর মর্যাদা দাবি করেন। তিনি এখন রাকিবের বাড়িতেই আছেন। তবে তাকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করা হচ্ছে বলে কলেজছাত্রীর বাবার অভিযোগ।

 

ওই কলেজছাত্রী এ প্রতিবেদককে বলেন, রাকিব আমার সাথে প্রেমের সম্পর্ক সৃষ্টি করে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে বার বার শারীরিকভাবে মিলিত হয়েছেন। এক পর্যায়ে আমি গর্ভবতী হয়ে পড়ি। পরে বিয়ের জন্য চাপ দিলে কৌশলে আমার গর্ভ নষ্ট করেন। এখন সমাজে আমি মুখ দেখাতে পারছি না। স্ত্রীর মর্যাদা দিয়ে আমাকে না নিলে আমার মরণ কোনো ছাড়া উপায় নাই।

 

এ বিষয়ে রাকিবের পিতা মহব্বত খান বলেন, ছেলের সাথে কেমন সম্পর্ক তা আমার জানার কথা নয়। ছেলে অনেক দিন ধরে বাড়িতে নেই। এখন সে আমার বাড়িতে অবস্থান নিয়ে আমাকে বিব্রতকর অবস্থার মধ্যে ফেলেছে।

 

মাধবপুর থানার তেলিয়াপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ গোলাম মোস্তফা বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে মেয়ের জবানবন্দি সংগ্রহ করেছেন। মাধবপুর থানায় মেয়ের পিতা শনিবার বিকেলে অভিযোগ দেওয়ার কথা। অভিযোগ পেয়ে ভিকটিমকে উদ্ধার করে ২২ ধারায় জবানবন্দি গ্রহণের জন্য হবিগঞ্জ বিচারিক আদালতে হাজির করা হবে। আদালতের নির্দেশে ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা করা হবে। অভিযোগের সত্যতা পেলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

মাধবপুর থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক বলেন,এ ঘটনায় মাধবপুর থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। পরবর্তীতে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com