আবারো বিপিএল নিয়ে অনিশ্চয়তা !

আবারো বিপিএল নিয়ে অনিশ্চয়তা !

আবারো বিপিএল নিয়ে অনিশ্চয়তা !
আবারো বিপিএল নিয়ে অনিশ্চয়তা !

খেলাধুলা ডেস্কঃ  এই অক্টোবরেই পর্দা ওঠার কথা ছিল বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ষষ্ঠ আসরের। এ জন্য ৫ অক্টোবর থেকে ১৬ নভেম্বর পর্যন্ত সম্ভাব্য সূচিও নির্ধারণ করেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। কিন্তু ডিসেম্বরে দেশজুড়ে অনুষ্ঠিত হবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। নির্বাচনের দুই মাস আগে দেশের সার্বিক নিরাপত্তার বিষয়টি মাথায় রেখে চলতি বছর বিপিএল করার সিদ্ধান্ত থেকে সরে দাঁড়ায় দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, নির্বাচনের পর ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে মাঠে গড়ানোর কথা ছিল ঘরোয়া ক্রিকেটের সবচেয়ে জাঁকজমকপূর্ণ এ টুর্নামেন্টের ষষ্ঠ আসরটির। কিন্তু এখন নতুন সূচি নিয়েও দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা। ২৭ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সম্ভাবনা থাকলেও নির্বাচন কমিশন থেকে এখনও এই মর্মে কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না আসায় কবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে তা নিয়ে শঙ্কা থেকেই যাচ্ছে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন যদি ডিসেম্বরে না হয়ে জানুয়ারিতে গড়ায় তাহলে বিপিএলের ষষ্ঠ আসর আদৌ মাঠে গড়াবে কি?

যেহেতু এখনো নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা হয়নি, সেহেতু নির্ধারিত তারিখেই বিপিএল অনুষ্ঠিত হবে বলে আশাবাদী বিসিবি। তবে নির্বাচনের তারিখ পেছালে টুর্নামেন্টও পেছাবে বলে জানিয়েছেন বিপিএল টেকনিক্যাল কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস। এ নিয়ে তার ভাষ্য, ‘এখনো পর্যন্ত সরকারি কোনো ঘোষণা হয়নি যে কবে নির্বাচন হবে। যদি নির্বাচনের তারিখ পিছিয়ে যায় সে অনুযায়ী আমরাও বিপিএলের তারিখ ঘোষণা করব।’

ডিসেম্বরে নির্বাচন অনুষ্ঠিত না হলে বিপাকেই পড়বে বিসিবি। কেননা নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে পূর্ণাঙ্গ সিরিজে অংশ নিতে ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল দেশ ছাড়বে। বিপিএল আয়োজনে কমপক্ষে দেড় মাস সময়। সে ক্ষেত্রে জানুয়ারির শেষে টুর্নামেন্ট আয়োজন করলেও শেষ হবে মার্চে। কিন্তু ফেব্রুয়ারিতে নিউজিল্যান্ডে সিরিজ থাকায় জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা টুর্নামেন্টের সবগুলো ম্যাচ খেলার সুযোগ পাবেন না।

আবার মার্চে কিউইদের বিপক্ষে সিরিজ শেষ করে দেশে ফিরে এপ্রিলে আয়ারল্যান্ড সিরিজের জন্য দেশ ছাড়বে টাইগার শিবির। সেই সিরিজ চলবে মে পর্যন্ত। আইরিশ মিশন শেষে টাইগাররা বিশ্বকাপে অংশ নিতে চলে যাবে ইংল্যান্ডে। বিশ্বকাপের পরের চার মাস বর্ষা মৌসুম। কাজেই আগামী বছরের অক্টোবরের আগে বিপিএল মাঠে গড়ানোর সুযোগ নেই।জানুয়ারির শুরুতে যদি বিপিএল নাই হয়, তাহলে টুর্নামেন্ট আয়োজনই সংশয়ে পড়ে যাবে।

নির্বাচন জানুয়ারিতে না হলে কী হবে, তা নিয়ে আপাতত পরিকল্পনা নেই আয়োজকদের। এ নিয়ে জালাল ইউনুস বলেন, ‘ফ্র্যাঞ্চাইজিরা আগের সময়কে সামনে রেখেই খেলোয়াড়দের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। চুক্তি করেছে। কিন্তু জাতীয় স্বার্থ তো আমাদের মেনে নিতে হবে। সেটি মেনেই বিপিএলের সঙ্গে সামঞ্জস্য করতে হবে। যদি নির্বাচন জানুয়ারিতে হয়, তখন কী করব এটা নিয়ে আপাতত কোনো পরিকল্পনা নেই। আগের সূচি ধরে এগোচ্ছি আমরা।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

 
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com