আবারও চড়া হবিগঞ্জের পেঁয়াজের বাজার

আবারও চড়া হবিগঞ্জের পেঁয়াজের বাজার

আবারও চড়া হবিগঞ্জের পেঁয়াজের বাজার
আবারও চড়া হবিগঞ্জের পেঁয়াজের বাজার

নিজস্ব প্রতিনিধি, হবিগঞ্জ: বেশ কয়েক দিন ধরে দেশের পেঁয়াজের বাজার অস্থিতিশীল। এসময়ের মধ্যে ধাপে ধাপে দাম বাড়তে থাকে। সর্বশেষ ২৭০ টাকা কেজি পর্যন্ত দাম বেড়ে যায় পেঁয়াজের। পেঁয়াজ সংকট কাটাতে সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগ নেওয়া হয়। তুরস্ক, মিশর, মিয়ানমার, চীন, পাকিস্তান থেকে আমদানি শুরু হয়। দ্রুত সময়ে সরকারি উদ্যোগ নেওয়ায় কমতে থাকে দাম। ২৭০ টাকা থেকে মাত্র চার দিনের ব্যবধানে ১২০ টাকা কেজিতে নেমে আসে পেঁয়াজের দর।

সপ্তাহ শেষ হতে না হতে আবারও দফায় দফায় বাড়তে থাকে রান্নায় অতিপ্রয়োজনীয় মসলাজাতীয় পণ্যটির। বর্তমানে বাজারে প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ ২৫০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে। এতে করে সরকারের পেঁয়াজ আমদানি, ব্যবসায়ীদের উদ্যোগ, বাজার নিয়ন্ত্রণের নানা ঘোষণার কোনো সুফলই দেখছেন না ক্রেতারা।

সোমবার (২৫ নভেম্বর) জেলার বিভিন্ন বাজার ও উপজেলার বাজারগুলি ঘুরে জানা গেছে এ তথ্য।

এসব বাজারে একেক বিক্রেতা একেক রকম দামে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন। দেশি পেঁয়াজ ২২০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ২৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করতে দেখা গেছে। অন্যদিকে আমদানি করা বিভিন্ন (বার্মা, মিশর, তুরস্ক, চীন) দেশের পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৫০ টাকার মধ্যে। দেশি নতুন পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৫০ থেকে ১৬০ টাকা, গাছসহ পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৩০ থেকে ১৫০ টাকার মধ্যে।

চেধুরী বাজার বিক্রেতা হেলাল মিয়া জানান, বাজারে দেশি পেঁয়াজের সরবরাহ কম, যা আছে তার চড়া দাম। এরসঙ্গে অন্য পেঁয়াজেরও দাম বেড়েছে।

আরেক ব্যবসায়ী জামিল জানান, যাদের কাছে আগের পেঁয়াজ আছে, তারা ১৮০ থেকে ২২০ টাকার মধ্যে বিক্রি করছেন। তবে যেসব ব্যবসায়ীরা সোমবার পাইকারি বাজার থেকে পেঁয়াজ কিনেছেন, তারা ২০০ টাকা বিক্রি করতে হচ্ছে। এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, এখন পাইকারি বাজারে এর দাম অনেক বেশি।

এদিকে, বাজারে গাছসহ দেশি পেঁয়াজের দামও বেশ চড়া। এসব পেঁয়াজ ১০০ টাকা থেকে এখন তা বেড়ে বাজার ১৩০ থেকে ১৫০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে। বিক্রেতারা বলছেন, চাহিদার তুলনায় পেঁয়াজ বাজারে কম আসায় দাম বাড়তি।

পাইকারি পেঁয়াজ বিক্রেতা অসিম রায় বলেন, বাজারে আমদানি না থাকায় দাম বেশি। এর আগে ভারতের পেঁয়াজ সরবরাহ বেশি ছিল, তাই দাম কম ছিল। এখন সেটা নেই। তাছাড়া প্লেনযোগে আসা পাকিস্তানি পেঁয়াজের দাম বেশি। তবে বাজারে আমদানি বেশি হলে দাম কমে আসবে।

পেঁয়াজ ক্রেতা দৈনিক যায়যায় দিন পত্রিকার বাহুবল প্রতিনিধি গতকাল একটি স্ট্যাটাশ দিয়ে বলেন, পেঁয়াজ কিনেছেন ১৮০ টাকা কেজি। বিক্রেতারা নাকি বলেছেন পেঁয়াজ এই রেইটে আর পাওয়া যাবেনা। তিনি বলেন, পেঁয়াজ আবারও ২৫০ টাকায় চলে যাচ্ছে।

আমিনুল ইসলাম নামের এক যুবক বলেন, ১২০ টাকা ধরে না কিনে ভুল করছি, ভাবছিলাম রাজাকার পেঁয়াজ যেহেতু দেশে এসেছে তাহলে রেইট আরো কমবে। কিন্তু হল না।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com