আজ সন্ধ্যা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত আরেক দফা কালবৈশাখী ঝড়বৃষ্টি

আজ সন্ধ্যা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত আরেক দফা কালবৈশাখী ঝড়বৃষ্টি

ঢাকায় আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় ঘণ্টায় ৮০ কিলোমিটার বেগে কালবৈশাখী বয়ে গেছে। ছবি: ঢাকা, শোভন ইসলাম

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা : ঢাকায় আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় ঘণ্টায় ৮০ কিলোমিটার বেগে কালবৈশাখী বয়ে গেছে। ঘণ্টা খানেকের ঝড়বৃষ্টিতে ঢাকায় তেমন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। এর আগে গত সপ্তাহেও ঢাকায় ৭০ কিলোমিটার বেগে ঝড় বয়ে যায়।

ঝড়-বৃষ্টির কারণে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া এবং মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া নৌপথে এক ঘণ্টার বেশি সময় ফেরিসহ সব লঞ্চ চলাচল বন্ধ ছিল। অপর দিকে আজকের কালবৈশাখীর আঘাতে কুষ্টিয়া ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ঝড়ে কয়েকটি উপজেলা, পল্লী বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে ও হেলে পড়ায় বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।

আবহাওয়াবিদ আরিফ হোসেন জানান, রাজধানীর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এলাকার ওপর দিয়ে আজ বেলা ১১টার দিকে যে কালবৈশাখী বয়ে যায়, এর বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ৮০ কিলোমিটার। একই সময় আগারগাঁও এলাকায় বাতাসের গতি ছিল ৫৯ কিলোমিটার।

 

আজ সন্ধ্যার পর থেকে মধ্যরাতের মধ্যে আরেক দফা কালবৈশাখী বয়ে যেতে পারে বলে আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

 

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, সকাল ১০টা থেকে দমকা ও ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে শুরু করে। শুধু রাজধানী নয়, কালবৈশাখী বয়ে গেছে টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, মুন্সিগঞ্জ, মানিকগঞ্জে। উত্তর-পূর্বের জেলা সিলেটেও কালবৈশাখী আঘাত হেনেছে। তবে ঢাকা, পদ্মাপারে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া, মানিকগঞ্জসহ দেশের মধ্যাঞ্চলে ঝড়ের গতি তুলনামূলক বেশি ছিল।

কালবৈশাখীর সঙ্গে প্রচুর বৃষ্টি হয়েছে। বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত এক ঘণ্টায় ঢাকায় বৃষ্টি হয়েছে ১৪ মিলিমিটার। এ সময় সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে চুয়াডাঙ্গায়, ৪০ মিলিমিটার। এ ছাড়া কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ৩৪, সিলেটে ৩১, ফরিদপুরে ১২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড হয়েছে।

আজ সন্ধ্যার পর থেকে মধ্যরাতের মধ্যে আরেক দফা কালবৈশাখী বয়ে যেতে পারে বলে আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

ঝড়ের কারণে বেলা ১১টার পর থেকে মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌপথে নৌযান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয় বলে জানান মাওয়ার বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থার (বিআইডব্লিউটিসি) সহকারী মহাব্যবস্থাপক খালেদ নেওয়াজ। দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ফেরিঘাটের মধ্যে নৌচলাচলও বন্ধ হয়ে যায় সকাল ১০টার দিকে। পৌনে এক ঘণ্টা পর হাওয়ার দাপট কমলে তা আবার চালু হয় বলে জানান সেখানকার বিআইডব্লিউটিসির ব্যবস্থাপক মো. শফিকুল ইসলাম।

বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া কার্যালয় জানায়, সকাল ১০টার দিকে পুরো আকাশ অন্ধকার হয়ে এক ভয়াবহ রূপ ধারণ করে। সঙ্গে তুমুল ঝোড়ো বাতাস ও বৃষ্টি দেখা দিলে দুর্ঘটনা এড়াতে কর্তৃপক্ষ ওই সময় দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয়। তবে এর আগে ছেড়ে যাওয়া দৌলতদিয়া থেকে রোরো ফেরি আমানত শাহ ও কে-টাইপ ফেরি কাবেরী এবং পাটুরিয়া থেকে ছেড়ে যাওয়া রোরো ফেরি খানজাহান আলী মাঝনদীতে পৌঁছে ঝড়ের কবলে পড়ে। ফেরি তিনটিতে ৩৬টির মতো পণ্যবাহী গাড়ি, ১০টি যাত্রীবাহী বাস ও ৮টি ছোট ব্যক্তিগত গাড়ি ছিল। তবে কোনো দুর্ঘটনা ছাড়ায় ফেরি তিনটি নির্ধারিত ঘাটে গিয়ে পৌঁছে।

বৈরী আবহাওয়ার কারণে দেশের উত্তর, উত্তর-পূর্ব ও যশোর অঞ্চলে ২ নম্বর নৌ হুঁশিয়ারি সংকেত জানানো হয়েছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের যুগ্ম পরিচালক আলমগীর কবীর জানান, দেশের উত্তর, উত্তর-পূর্ব ও যশোর অঞ্চলে ২ নম্বর নৌ হুঁশিয়ারি সংকেত জানানো হয়েছে। সকাল ১০টার পর থেকে দুপুর ১২টায় পর্যন্ত ঢাকার সদরঘাটে নৌযান চলাচল বন্ধ ছিল।

অপর দিকে কালবৈশাখীর আঘাতে কুষ্টিয়ায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। সকাল নয়টায় শুরু হওয়া ঝড়ে জেলার দৌলতপুর উপজেলায় পল্লী বিদ্যুতের ৮টি খুঁটি ভেঙে পড়ে। এরপর থেকে ওই উপজেলা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। এ ছাড়া নির্মাণাধীন কুষ্টিয়া শহর বাইপাসে পল্লী বিদ্যুতের ১১টি খুঁটি হেলে পড়ে। এতে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তর চালের মোকাম খাজানগরের কিছু এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।

জানতে চাইলে কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ব্যবস্থাপক হারুণ-অর-রশীদ জানান, আশা করা যাচ্ছে অল্প সময়ের মধ্যে সবকিছু স্বাভাবিক হয়ে যাবে। ঝড়ে উঠতি ধানের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। অনেক খেতে পানি জমে গেছে। বাতাসের কারণে ধান ঝরে পড়েছে।

কুষ্টিয়া সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সেলিম হোসেন বলেন, বাতাস ও বৃষ্টিতে ধান গাছ হেলে পড়েছে। জমিতে পানি জমে থাকায় খড়ের গুণগত মান কমে যাবে। এ ছাড় ধান ঝরে যাওয়ায় কৃষক কিছুটা ক্ষতির মুখে পড়বে। এ রকম অব্যাহত থাকলে আরও সমস্যায় পড়বে কৃষক। এ জন্য কৃষকদের আগামী দু-তিন দিনের মধ্যে পুরো ধান কেটে ফেলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

লোকালয়/একে

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com