সংবাদ শিরোনাম :
শায়েস্তাগঞ্জে স্কুল ছাত্র তানভীর হত্যার প্রতিবাদে শোকসভা কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করা হচ্ছে : আইজিপি। বিদ্রোহীদের জন্য আওয়ামী লীগের দরজা চিরতরে বন্ধ। নানক। কোম্পানীগঞ্জে সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির হত্যায় জড়িতদের গ্রেফতার করে ফাঁসির দাবীতে  গোবিন্দগঞ্জে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত। হবিগঞ্জের বানিয়াচঙ্গে সার্কেল ডে অনুষ্ঠিত। ‌থানার দরজা হবে সেবাগ্রহীতার জন্য উম্মূক্ত- সার্কেলের নবাগত সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মুরাদ  বাহুবলে জামাল হত্যা মামলার বাদিকে হত্যার হুমকি । হবিগঞ্জের বাহুবলে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩ জন, সড়ক অবরোধ‌ আ.লীগ থেকে বহিষ্কার হবিগঞ্জের মেয়র মিজানুর রহমানের স্ত্রী শায়েস্তাগঞ্জে গরির রাতে নগদ টাকা ও গাঁজার আস্তানায় অভিযান, গ্রেপ্তার-৫
অভিভাবকদের সময়ের সদ্ব্যবহার

অভিভাবকদের সময়ের সদ্ব্যবহার

সন্তানদের ক্লাস বা কোচিং শেষ না হওয়া পর্যন্ত স্কুল-কলেজের সামনে বসে থাকেন অধিকাংশ অভিভাবক। এ সময় তাঁদের কিছুই করার থাকে না। স্কুল-কলেজের সামনে তাঁদের ভিড়ের কারণে যানজটও বেঁধে যায়। অভিভাবকেরা এভাবে বসে না থেকে সময়টা কীভাবে কাজে লাগাবেন? জানাচ্ছেন মাহবুব আলম, এঁকেছেন রাজীব

প্রশ্নপত্র ফাঁসের বিরুদ্ধে সচেতনতা
আমাদের কারও কারও হাতে আর কিছু থাক বা না থাক, সময় আছে অফুরন্ত। সেটা বোঝা যায় ফেসবুকে কোনো সেলিব্রিটির পোস্টের কমেন্ট পড়লে। কেবল সময়ই নয়, বাংলা ভাষায় যে উচ্চারণের অযোগ্য এত শব্দ আছে, সেটাও জানা যায় সেখানে। দেশের ওই ফেসবুকারদের সংখ্যা এতই বেশি যে কদিন পর বাংলাদেশের ইন্টারনেট ভেঙেও পড়তে পারে। অভিভাবকেরা ওই ফেসবুকারদের খুঁজে বের করে সবাই মিলে রিপোর্ট করতে পারেন। এ ছাড়া ফেসবুকে প্রশ্নপত্র ফাঁসের বিরুদ্ধে আন্দোলন ও সচেতনতা গড়ে তোলার জন্য রাখতে পারেন বিশেষ অবদান।

তদন্ত কমিটিকে সহায়তা
দেশে ঘটনা বা দুর্ঘটনায় অনেক তদন্ত কমিটি গঠিত হয়। তবে তদন্তের রিপোর্ট আলোর মুখ দেখে খুব কমই। পর্যাপ্ত ধৈর্যশীল লোকবলের অভাবে কমিটি হয়তো এসব তদন্ত রিপোর্টের কাজ চালিয়ে যেতে পারে না। অভিভাবকেরা জাতির ভবিষ্যৎ নিয়ে অনেক চিন্তা করেন। তাই স্বেচ্ছায় বিনা পারিশ্রমিকে তদন্ত কমিটিকে সহায়তা করতেই পারেন।

যান্ত্রিক কাজে সহায়তা
ইয়ারফোন মানেই প্যাঁচ। অহেতুক এই প্যাঁচের কারণে পৃথিবীর অনেক সরল মানুষ ইয়ারফোন ব্যবহার করা থেকে অবসর নিয়েছেন। আর পাবলিক প্লেসে ইয়ারফোন ব্যবহারের ফলে কমে যায় শব্দদূষণ। তাই অভিভাবকেরা চাইলেই বিনা মূল্যে মানুষের ইয়ারফোনের প্যাঁচ খোলার মতো মহান দায়িত্ব কাঁধে নিতে পারেন। চাইলে ‘খোলো’ নামে একটি অ্যাপ খুলে কিছু আয়-রোজগারও সম্ভব।

ফুটবল-দর্শক
কেবল এই অভিভাবকেরাই পারেন দেশের ফুটবলকে বিলুপ্তির পথ থেকে ফিরিয়ে আনতে। বাংলাদেশের ফুটবলে গোলের মতো দর্শকও খুব একটা দেখা যায় না। গ্যালারির চেয়ারগুলো পড়ে থাকে বেকার। অভিভাবকেরা বেকার সময় না কাটিয়ে সন্তানদের স্কুলে দিয়ে সোজা মাঠে গিয়ে গ্যালারির খালি আসনগুলো পূরণ করতে পারেন। সময় কাটবে, বিনোদনও পাবেন।

প্রবাদ মেনে রেকর্ড
অনেকেই অনেক সময় ‘কত ধানে কত চাল’ প্রবাদটি ব্যবহার করেন। আক্ষরিক অর্থেই সেটা কখনো হিসাব করে দেখা হয় না। এ ক্ষেত্রে অভিভাবকেরা কত ধান থেকে কত চাল উৎপন্ন হয়, সেটা সঠিকভাবে গুনে একটা রেকর্ড করতে পারেন। গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে খবর দিলে এটা অবশ্যই সম্ভব।

বই প্রকাশ
অভিভাবকেরা চাইলেই অসংখ্য বই লিখতে পারেন।
প্রতিদিন বিভিন্ন বিষয়ে অনেক গল্পগুজব করেন তাঁরা। এসবের সংকলন নিয়ে প্রতিবছর বিভিন্ন ধরনের বই লেখা যায়। এতে দেশের সাহিত্যক্ষেত্রে আসবে বৈচিত্র্য, তৈরি হবে নতুন পাঠক। এ ছাড়া ‘এ প্লাস পাওয়ার ১০১টি উপায়’, ‘সফল অভিভাবকের সূত্র’ ধরনের বইও তাঁরা লিখতে পারেন অনায়াসে।

বিশেষ শ্রোতা
দেশে অনেক বক্তা আছেন। অনেক কিছুই বলতে চান তাঁরা, কিন্তু শ্রোতা খুঁজে পান না। অভিভাবকেরা স্কুল-কলেজের সামনে বসে না থেকে সেসব বক্তার সামনে গিয়ে বসতে পারেন। তাতে যদি বক্তা একটু মোটিভেশন পান, মন্দ কী!

বি.দ্র.: এ লেখাটি স্কুল-কলেজের সামনে বসে যেসব অভিভাবক পড়েছেন, তাঁদের প্রাণঢালা অভিনন্দন!

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com